মাত্র ১০০ টাকা বিনিয়োগে পেতে পারেন লক্ষ টাকা, দুর্দান্ত স্কিম পোস্ট অফিসে, যেভাবে করবেন রইলো পদ্ধতি!

নিজস্ব সংবাদদাতা: স্বল্প বিনিয়োগে বেশি রিটার্ন পেতে চান? নিজের খরচ পরিবারের খরচ বাকি সব সামলে নিজের ভবিষ্যতের জন্য সঞ্চয় করতে চান? তাহলে আপনার জন্যে এসেছে একটি দুর্দান্ত স্কীম। এই স্কীম যেমন সুরক্ষিত,তেমনি এতে পাবেন ভালো রিটার্ন।এই স্কিমে যদি আপনি বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়ান, তাহলে আগামী পাঁচ বছরে লাখপতি হওয়ার সুযোগ আছে আপনার সামনে। বিনিয়োগ বিশেষজ্ঞদের মতামত অনুযায়ী, বিনা ঝুঁ’কি নিয়ে এই রিটার্ণ আপনার জন্যে ভীষণ ভালো। এমনকি তারা দাবি করেছেন, ব্যাংকের থেকেও বেশি সুর’ক্ষিত থাকবে আপনার কষ্টার্জিত অর্থ।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই প্রকল্পএর মেয়াদ পাঁচ বছর হলেও, আপনি এক বছর পেরিয়ে যাওয়ার পরেই টাকা তুলতে পারবেন। সাধারণত প্রত্যেক ত্রৈমাসিকের আগে সুদের হার নির্দিষ্ট হারে বেঁধে দেয় কেন্দ্র সরকার। সেই নির্দিষ্ট হতে সুদ উপভোগ করতে পারবেন আপনি।এই বছরের অক্টোবর মাস থেকে ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত ত্রৈমাসিকে কেন্দ্র সরকার স্বল্প সঞ্চয়ে সুদের হার অপরিবর্তিত রেখেছে। এরফলে পোস্ট অফিসে যেসব স্বল্প সঞ্চয়ের স্কীম আছে, সেখানে এখনও লাভ পাওয়া যাচ্ছে। পোস্ট অফিসের সুদের সুদের হার ৬.৮ শতাংশ।

আপনাদের জন্যে যে প্ল্যান টি এসেছে, সেটি হলো ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট। এখানে যৎসামান্য টাকা বিনিয়োগ করেও ভালো রিটার্ণ পাওয়া যায়। এখানে সর্বনিম্ন ১০০ টাকা থেকে বিনিয়োগ শুরু করতে পারবেন আপনি।। পাঁচ বছরের মেয়াদ পূর্ণ হয়ে যায় এই প্লানে।ট্যাক্স ও বিনিয়োগ বিশেষজ্ঞ সকলেই জানিয়েছেন, এনএসসি স্কিমে কেউ ১ লক্ষ টাকা বিনিয়োগ করলে, তবে পাঁচ বছর পরে ফেরত পাবেন ১,৩৮,৯৪৯ টাকা।

এককালীন ৭.২ লক্ষ টাকা যদি বিনিয়োগ করেন, তাহলে মাত্র পাঁচ বছরে ১০ লক্ষ টাকা পেয়ে যাবেন । ২০ লক্ষ টাকা রিটার্ণ পাওয়ার জন্যে বিনিয়োগ ১৪.৪ লক্ষ টাকা। যদি বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়িয়ে দিতে পারেন, তাহলে লাভবান হবেন।উল্লেখ্য সরকারএর সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্প এবং ডাকঘরের সমস্ত প্রকল্পে সুদের হার পরিবর্তন করা হবেনা। করোনা কালে বারবার অ’সু’বিধে তে পড়েছে সাধারণ মানুষ। তাদের আয় কমে গেছে ভী’ষণ পরিমাণে। যদি এরপর জমানো টাকার সুদের হার কমে যায়, সেক্ষেত্রে অবস্থা আরো করুন হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button