কেনো ভালো মানুষের সাথেই সবসময় খারাপ হয়? উত্তর দিয়েছিলেন শ্রীকৃষ্ণ!

কেন ভালো মানুষের সাথে সবসময় খারাপ ঘটে থাকে এ বিষয়ে শ্রীকৃষ্ণ যে ব্যাখ্যা দিয়েছেন তা আজ আমরা আমাদের প্রতিবেদনটিতে আলোচনা করবো। পৃথিবীতে বিভিন্ন ধরনের মানুষ বসবাস করেন। এদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ রয়েছে যারা খারাপ কাজ করতে এতটুকু দ্বিধাগ্রস্ত হন না।

কোনো ভয় ছাড়াই তারা খারাপ কাজে নিজেদের লিপ্ত করে থাকে, অন্যদিকে এমন অনেক ব্যক্তি রয়েছেন যারা খারাপ কাজ করতে ভ-য় পায় নিজেদেরকে খারাপ কর্মে লিপ্ত করার থেকে বিরত রাখেন। কেননা তারা মনে করেন কোনো খারাপ কাজ করলে তাঁদের বিভিন্ন সংকটের মধ্যে পড়তে হতে পারে।কিন্তু এই ভাবনার সম্পূর্ণ উল্টোটা ঘটে বারংবার।

লক্ষ্য করলে দেখবেন প্রায় সব ভালো মানুষের সাথে সর্বদা খারাপ কিছু ঘটে এবং খারাপ মানুষের সাথে প্রায়শঃ ভালো কিছু ঘটে থাকে।আপনি কি এ বিষয়ে কখনও চিন্তা করেছেন কেন ভালো মানুষকে সবসময় খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়? হয়তো এরকম কোনো বিচার আপনার মনে এসেছে কিন্তু আপনি এর যথাযথ উত্তর খুঁজে পাননি। তাই আজ আমরা আমাদের এই বিশেষ প্রতিবেদনটিতে এ বিষয়ে সঠিক ব্যাখ্যা তুলে ধরবো। এ বিষয়ে বলতে গিয়ে বলতেই হয় যে অর্জুন, ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে ঠিক একই প্রশ্ন করেছিলেন।

ভালো মানুষের সাথে সর্বদা খারাপ কেন ঘটে থাকে তখন ভগবান শ্রীকৃষ্ণ এই প্রশ্নের যে উত্তর অর্জুন কে দিয়েছিলেন তা আজ আমরা জানবো। তাহলে চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক কি ছিল সেই ভগবান শ্রীকৃষ্ণের বাণী ! অর্থাৎ অর্জুনকে কি উত্তর দিয়েছিলেন। এ বিষয়ে আমরা সকলে জ্ঞাত যে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ, অর্জুন এর মাধ্যমে সমস্ত বিশ্বব্রহ্মাণ্ড কে গীতার জ্ঞান প্রদান করেছিলেন। যখন মানুষ কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যান তখন এই জ্ঞান তাঁকে প্রেরিত করে। একবার অর্জুন ভগবান শ্রীকৃষ্ণকে প্রশ্ন করেছিলেন ,”হে প্রভু সর্বদা কেন ভালো মানুষের সাথে খারাপ হয়?”

তখন এই প্রশ্নের উত্তর দিতে গিয়ে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনকে বলেছিলেন এটা আমাদের প্রত্যেকের মনে হয় ভালো মানুষের সাথে খারাপটা ঘটছে কিন্তু আদৌ এরূপ ঘটে না। যে সকল ব্যক্তিরা সদাচারী হয় এবং সর্বদা ঈশ্বরকে প্রেম করে , ঈশ্বর চান যে তাঁরা আগের জন্মে যে সমস্ত পাপ করেছে তা যেন শীঘ্রই শেষ হয়ে যায় এবং তারা যেন সমস্ত পাপ কর্ম থেকে দ্রুত নিবৃত্তি লাভ করে বাকি জীবন শান্তিতে কাটাতে পারে।

ভগবান শ্রীকৃষ্ণ অর্জুনকে বলেছিলেন যে মানুষ আগের জন্মে তাঁর যে পা-প করেছিল তার ফলপ্রসূ সে সদ্ জ্ঞান লাভ করেছে। বর্তমানে সে সদাচারী মানুষে পরিবর্তিত হলেও সমস্ত মানুষকে তার পূর্ব জন্মের কৃতকর্মের ফল অবশ্যই ভোগ করতে হয়। এমনকি দেবতারাও তাদের কৃতকর্মের ফল ভোগ করেন।

তাই সমস্ত পূর্ব জন্মে কৃত পা-পকর্মের ফল বর্তমান জীবনে দুঃখ-কষ্ট হিসেবে নেমে আসে এবং মানুষ যখন তাঁর কৃতকর্মের ফল ভোগ করে নেন তখন সে মুক্তির পথ লাভ করে নেয়। হয়তো এই কারণে ভগবান বিষ্ণু রাম বালীকে বধ করার কারণে পরজন্মে শ্রী কৃষ্ণ রূপে শিকারির হাতে তীর বিদ্ধ হয়েছিলেন এটাই নিয়তি। যা সকলের সাথে ঘটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button