রাতারাতি তারকা থেকে অন্ধকারে কোথায় হারিয়ে গেলেন রানু মন্ডল? এখন কি করছেন তিনি? দেখলে কষ্ট পাবেন আপনিও!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-কেমন হতো যদি রাতারাতি আপনি হয়ে উঠলেন একদম সেলিব্রিটি ? হাজার হাজার মানুষের একটা চেনা মুখ হয়ে উঠলেন রাতারাতি ? । নিশ্চই খারাপ লাগবে না । রানাঘাট এর রানু মন্ডল এর সাথে ঘটে এরম ই এক ঘটনা । হ্যাঁ সেই রানু মন্ডল যে রাতারাতি পৌঁছে যায় লাইমলাইটে কেন্দ্রবিন্দুতে । হাজার হাজার মানুষের শ্রদ্ধার , ভালোবাসার মানুষ হয়ে ওঠে এই রানু মন্ডল । কিন্তু কে এই রানু মন্ডল ? কি তার পরিচয়? সে সব ই অজানা নয় আমাদের ।

রানাঘাট স্টেশন চত্বরে থাকা রানু মন্ডল রাতারাতি ভাইরাল হয় লতা মঙ্গেশকর এর ” “এক প্যায়ার কা নাগমা হ্যা ” গান গেয়ে । লতা কণ্ঠী এই রানু মন্ডল কে চিনতে থাকে দেশের রাজপথ থেকে অলিগলির মানুষ । ব্যাস তারপর আর ঘুরে তাকাতে হয় নি তাকে । সোজা শিরোনামের শীর্ষে । সেই সময় এমন কোনো মিডিয়া ছিলো না যে রানু মন্ডলের কথা সম্প্রচার করেনি । করবেই না কেন? সব থেকে বেশি আলোচিত হওয়া খবর কোন মিডিয়া সম্প্রচার করতে চাই না ? । অন্যথা হয়নি এবার ও ।

কিন্তু সম্প্রতি আর শোনা যায় না রানু মন্ডলের নাম। কিন্তু কেন? তাহলে কি হারিয়ে গেলো? কেউ কি শোনে না তার গান? এরকম আরো অনেক প্রশ্ন ঘুরছে অনুগামীদের মনে । অনেকে বলছেন ” রানু মন্ডল আর তেমন কাজ পাচ্ছে না তাই মিডিয়ার মুখোমুখি হচ্ছে না “।

দেশে লকডাউন এর সময় একটি youtube চ্যানেলের মাধ্যমে তিনি ত্রাণ এর আর্জি জানান যা নিজের হাতে দেবে সে । কিন্তু তারপর আর কোনো আগ্রহ দেখা যায় নি তার মধ্যে ।যার জন্য রানু মন্ডল আজ শিরোনামের শীর্ষে সেই অতীন্দ্র জানান ” এই লকডাউন এ বেশ কিছু গরিব মানুষ কে আমি নিয়ে যায় রানু দির কাছে ।তাদের ত্রাণ দিয়ে সাহায্য করেছে তিনি । তার উপার্জনের টাকা থেকেও সাহায্য করেন তিনি “। কিন্তু বাস্তবে যেন অন্য রকম দেখাচ্ছে । ফ্যানদের সাথে দুর্ব্যবহার শুরু করেন তিনি ।

গত ডিসেম্বরে কাতারে একটি অনুষ্ঠান করার পরিকল্পনা করে একটি সংস্থা । সেখানে আমন্ত্রিত ছিলো হিমেশ ও রানু মন্ডল ও । আয়োজকরা শিল্পীদের নিয়ে যান একটি শপিং মলে। ভিতরে এক বাঙালি মহিলা সেলফি তোলার জন্য পিছন দিক থেকে রানুর ঘাড়ের কাছে টোকা দেন। আর তাতেই ভয়ঙ্কর চটে প্রকাশ্যে তাঁকে অপমান করেন রাণু মণ্ডল! অনুগামীদের বক্তব্য যে অহংকার রানু মন্ডলের পতন ডেকে এনেছে । এর পর থেকে বিভিন্ন শো থেকে বাদ পড়ে যায় রানাঘাট এর এই লতা কুণ্ঠি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button