এবারে মা দুর্গার কিসে আগমন ও কিসে গমন? তার ফল কি? রইলো এবারের পুজোর পূর্ণাঙ্গ সময়সূচি!

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গাপুজা। বাঙালির প্রাণের উৎসব সেই দুর্গা পুজা আসতে আর 100 দিন‌ও বাকি নেই। শরতের আগমন ,ভোরের শিশির ভেজা ঘাস, কাশফুল ও নির্মল আকাশ জানান দিচ্ছে দুর্গা পুজার আগমনী বার্তা। বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা পুজাতে মানুষ আনন্দ উৎসবে মাতোয়ারা হয়ে ওঠেন। কিন্তু এ বছরের দুর্গা পুজো কে নিয়ে অনিশ্চয়তার শেষ নেই। তবুও আমাদের বিশ্বাস মা দুর্গা অসুরকে পরাজয় করে এই ধরাধামে নিশ্চয়ই অবতীর্ণ হবেন ।

এবছরের পুজো সত্যিই একটু অন্যরকম কেননা পুজো শুরুর পূর্বেই লক্ষ্য করা গেল চমক। শাস্ত্রমতে একমাসে দুটি আমাবস্যা পড়ায় মল মাস হয়ে গিয়েছে ১৪২৭সনের আশ্বিন মাস। তাই এই বছরের দুর্গা পুজো শরৎ এ নয় হেমন্তে। শারদীয় উৎসব ও তাই হচ্ছে হৈমন্তিক। আর এই ২০২০ সালের পূর্ণাঙ্গ সময়সূচী মায়ের আগমন ও গমন কোন বাহনে হতে চলেছে? তার ফলাফল কি? আসুন তাহলে তা বিস্তারিত ভাবে জেনে নেওয়া যাক।

পঞ্জিকা অনুযায়ী এবছর ১৭ই সেপ্টেম্বর আশ্বিনের প্রথম দিন আমাবস্যা পরেছিল সেই মত ঐদিন মহালায়া অনুষ্ঠিত হয়েছে আবার ১৬ই অক্টোবর ফের অমাবস্যা। তাই দুবার আমাবস্যার ফাঁদে মল মাস হয়ে গিয়েছে এই আশ্বিন মাস। ফলে কোন শুভকাজ এই মাসে অনুষ্ঠিত হবে না। সেই কারণে পুজো পিছিয়ে কার্তিক মাসে চলে যাচ্ছে। তাহলে চলুন এবার জেনে নেওয়া যাক এ বছরের দুর্গা পুজার দিনকাল।

২১শে অক্টোবর ৪ঠা কার্তিক বুধবার মহা পঞ্চমী।
২২ অক্টোবর ৫ই কার্তিক বৃহস্পতিবার মহাষষ্ঠী
২৩শে অক্টোবর ৬ ই কার্তিক শুক্রবার মহাসপ্তমী।
২৪ শে অক্টোবর ৭ই কার্তিক শনিবার মহাষ্টমী।

২৫শে অক্টোবর ৮ই কার্তিক রবিবার মহানবমী।
২৬ শে অক্টোবর ৯ই কার্তিক সোমবার বিজয়া দশমী।
সনাতন ধর্মে দেবীর আগমন ও গমন এর জন্য নানা প্রকার যানবাহনের উল্লেখ রয়েছে। কখন কোন যানবাহন মা দুর্গা ব্যবহার করবেন সে বিষয়েও উল্লেখ রয়েছে শাস্ত্রে।

মনে রাখতে হবে পুজোর সপ্তমীতে দেবী দুর্গার আগমন এবং দশমীতে মা দুর্গার গমন। এই দুইদিন সপ্তাহের কোন কোন বারে পরছে তার ওপর নির্ভর করে দেবী আগমন ও গমনের ক্ষেত্রে কোন যানবাহনটি ব্যবহার করবেন সে বিষয়টি। শাস্ত্রে বলা হয়েছে” রবৌ চন্দ্রে গজারূঢ়া।
ঘোটকে শনি ভৌময়ো:।।
গুরৌ শুক্রে চ দোলায়াং ।
নৌকায়াং বুধবাসরে।।”

শুরুতে বলা হচ্ছে রবৌ চন্দ্রে গজারূঢ়া অর্থাৎ সপ্তমী বা দশমী যদি রবিবার বা সোমবার হয় তাহলে দেবী দুর্গা আগমন বা গমন হবে গজে বা হাতিতে।
এরপর বলা হয়েছে ‘ঘোটকে শনি ভৌময়ো: ‘ অর্থাৎ শনিবার বা মঙ্গলবার সপ্তমী বা দশমী পরলে দেবীর আগমন হবে ঘোটক অর্থাৎ ঘোড়ায়।

‘গুরৌ শুক্রে চ দোলায়াং ‘ অর্থাৎ
বৃহস্পতিবার বা শুক্রবারে সপ্তমী পরলে দেবী দোলায় আসবেন এবং একইভাবে দেবী দোলায় গমণ করবেন।’নৌকায়াং বুধবাসরে ‘ অর্থাৎ
বুধবার সপ্তমী পরলে দেবী নৌকায় আগমন এবং বুধবার দশমী পরলে দেবীর নৌকায় ভমন।

এই সূত্রানুযায়ী এবছরের সপ্তমী যেহেতু শুক্রবারে তাই মা আসবেন দোলায় চড়ে ফলস্বরূপ বহু মৃত্যু বা মরণ । সেটি প্রাকৃতিক বিপর্যয় হতে পারে কিংবা মহামারীতে। এবং দশমী পরেছে সোমবার তাই মায়ের গমন হবে গজে অর্থাৎ হাতিতে ফলাফল মর্তে জলের সাম্যতা বজায় থাকবে এবং শস্যের ফলন ভালো হবে। সুখ ও সমৃদ্ধিতে পরিপূর্ণ থাকবে মর্ত্যভূমি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button