ভয়া-ন-ক হিং-স্র চিতা দ্রুত গতিতে এগিয়ে আসছে হুইল- চেয়ারে বসে থাকা যুবকের দিকে! রইলো সেই ভিডিও

ভারত বর্ষ মহামিলনের পূণ্যভূমি। ভারতবর্ষে বহু ধর্মের মানুষেরা সৌহার্দ্যপূর্ণ ভাবে বসবাস করেন। এই সুবিশাল ভারতবর্ষে জুড়ে প্রচুর বনভূমি নদনদী সবকিছুই যেন জালের মতো ছড়িয়ে রয়েছেঅসংখ্য নদী থাকার দরুন ভারতবর্ষকে নদীমাতৃক দেশ বলা হয়। প্রচুর শহর শিল্প-কলকারখানা এই নদীকে কেন্দ্র করেই গড়ে উঠেছে।ভারতবর্ষের জলবায়ু মূলত মৌসুমী বায়ু কেন্দ্রিক। অর্থাৎ মৌসুমী বায়ু কে কেন্দ্র করে গোটা ভারতবর্ষে কৃষি কাজ করা হয়ে থাকে।

ভারতবর্ষে প্রচুর বনভূমি যেমন লক্ষ্য করা যায় তার সাথে সাথে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ম্যানগ্রোভ অরণ্য এই ম্যানগ্রোভ অরণ্য বহু মানুষের রুটি রুজির সংস্থান।বর্তমান সময়ে করোনার মতো অতি ম-হা-মা-রী কালে যখন সারা বিশ্বের মানুষ জর্জরিত তখন কিছু মানুষ নিজেদের সময় কাটানোর উদ্দেশ্যে নিজেকে বন্দি করে রেখেছেন গোটা সোশাল মিডিয়া জুড়ে।এই সোশ্যাল মিডিয়ায় আমাদের অনেকটা টাইম অতি সহজেই কাটিয়ে দেয়।

বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও প্রকাশিত হয় এই সোশ্যাল মিডিয়ায়। তা দেখে অনেকেই যেমন তাজ্জব বনে যান আবার অনেকে কষ্ট দাও ভিডিও দেখে নিজে নিজে কষ্ট পান ।সম্প্রতি এমন একটি ভিডিও নেট দুনিয়ায় ঘুরে বেড়াচ্ছে এটি দেখে সকল দর্শকরা তাজ্জব বনে গিয়েছেন।ভিডিওটিতে লক্ষ্য করা যাচ্ছে একটি যুবক যে কিনা প্রতিবন্ধী প্রতিবন্ধীদের সারাটা জীবনই প্রায় হুইলচেয়ারে বসে কাটাতে হয়।ভিডিওটিতে লক্ষ্য করা যাচ্ছে একটি যুবক হুইল চেয়ারে বসে আছে তার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ভারতের সবচেয়ে দ্রুতগামী ধূর্ত হিংস্র প্রজাতির বাঘ চিতা।

কি ভাবছেন চিতা টি হুইল চেয়ারে বসা ব্যক্তিটি কে আ-ক্র-ম-ণ করবে?আকর্ষণীয় ব্যাপার চিত্রটি স্বাভাবিকভাবে সবাই ভাবলেও আক্রমণ করার কথা কিন্তু দেখা গিয়েছে চিতাবাঘ মানুষটির কাছে গিয়ে বাচ্চাদের মত আদর খাচ্ছে, এবং বাঘটির গায়ে গায়ে হাত বুলিয়ে দিচ্ছে ঐ যুবকটি। ভিডিওটি কিছুক্ষণের মধ্যেই বহুল পরিমাণে ভাইরাল হয়ে যায়। সকলেই কাছে জানা চিতাবাঘ অত্যন্ত হিং-স প্রাণী কিন্তু অদ্ভুতভাবে ভিডিওটিতে বাগটি গানা যুবকটির শিশু অর্থাৎ বাঘটিকে শিশুর সাথে তুলনা করা হয়েছে।ভিডিওটি দেখে নিমেষের মধ্যে বহু মানুষের কাছে প্রশংসিত হয় এবং প্রচুর ভিউ এবং লাইক পড়তে থাকে। মানুষ পোষ না মারলেও পশু যে মানুষের পোষ মানে এবং তাকে দিও যে আদর করানো যায় সেই কথাই প্রমাণ করে দিলেন ওই যুবক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button