বাড়িতে একবার এই পদ্ধতিতে বানিয়ে দেখুন নিরামিষ চালকুমড়ার ঘন্ট, যেই খাবে বলবে লা-জবাব

নিজস্ব প্রতিবেদন: নিরামিষের দিনে বাড়িতে কি রান্না করা হবে সেটা নিয়ে প্রায় সময় কিন্তু চিন্তায় থাকেন গৃহিণীরা! আজ আমরা আপনাদের সাথে একটি বিশেষ নিরামিষ রেসিপি শেয়ার করে নিতে চলেছি যা একবার খেলেই কিন্তু বাড়ির সকল সদস্যরা আপনার হাতে বারবার খেতে চাইবে। এই রেসিপিটি হল নিরামিষ চালকুমড়োর ঘন্ট। চলুন তাহলে আর সময় নষ্ট না করে আমাদের আজকের এই প্রতিবেদনটির মূল পর্বে যাওয়া যাক। ভালো লাগলে অবশ্যই কিন্তু প্রতিবেদনটি শেয়ার করে নিতে ভুলবেন না।

কিভাবে বানাবেন?

রেসিপিটি তৈরি করার জন্য ৫০০ গ্রাম পরিমাণে চাল কুমড়ো প্রথমেই আপনাদের ছোট টুকরো করে কেটে নিতে হবে। তারপর গ্যাসে একটা কড়াই বসিয়ে তাতে তেল দিয়ে দিন এবং যোগ করুন পাঁচফোড়ন, একটি তেজপাতা আর একটি শুকনো লঙ্কা।ফোড়নটিকে নাড়াচাড়া করে হালকা ভেজে নিন এবং তার মধ্যে যোগ করুন সামান্য হলুদ গুঁড়ো, জিরেগুঁড়ো এবং এক চামচ আদা বাটা। মসলাগুলোকে লো ফ্লেমে হালকা নাড়াচাড়া করে ভেজে নিন এবং তারপর এর মধ্যে দুটো কাঁচালঙ্কা, এক চামচ লবণ এবং এক চামচ চিনি যোগ করুন। এবার মসলার সাথে সমস্ত উপকরণ গুলোকে একটু নাড়াচাড়া করে জল দিয়ে কষিয়ে নিন।

এক থেকে দুই মিনিট কষিয়ে নেওয়ার পরে কেটে রাখা চালকুমড়ো গুলো এর মধ্যে যোগ করতে হবে। সাথে দিয়ে দেবেন ২০ থেকে ২৫ গ্রাম ভিজিয়ে রাখা কাঁচা ছোলা। এই দুটি উপকরণকে মসলার সাথে ভালোভাবে এবার বেশ কিছুক্ষণ কষিয়ে নিতে হবে যতক্ষণ পর্যন্ত না চাল কুমড়ো থেকে জল ছাড়ছে। চাল কুমড়ো থেকে জল ছাড়তে থাকলে এটাকে ঢাকা দিয়ে লো ফ্লেমে ৭ থেকে ৮ মিনিট পর্যন্ত ফুটিয়ে নিন। নির্ধারিত সময়ের পর ঢাকনা খুলে এর মধ্যে আগে থেকে কুড়িয়ে রাখা নারকেল যোগ করুন। নাড়াচাড়া করে নারকেলটিকে চাল কুমড়োর তরকারির সাথে ভালো করে মিশিয়ে নেবেন।।

এরপর এর মধ্যে এক চামচ দেশি ঘি আর হাফ চামচ গরম মসলা দিয়ে দেবেন। ঘি আর মসলা যোগ করার পর আবারো একবার চালকুমড়োর ঘন্ট ভালোভাবে নাড়াচাড়া করে নিন। ব্যাস এবার সহজেই আপনারা কিন্তু এই রেসিপি গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করতে পারেন।। বাড়িতে বানানোর পর খেতে ভালো লাগলে অবশ্যই একটা কমেন্ট করে আমাদের জানাতে ভুলবেন না।

Leave a Comment