বিজেপি কে হারাতে তৃণমূল নেতার নয়া দাওয়াই,’এবারে বুথ জ্যাম করে ভোট করবো’ অনুব্রতকে আশ্বাস তৃণমূল নেতার!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-বিধানসভা ভোটের আগে বিভিন্ন দল গুলি একটু গুছিয়ে নিচ্ছে নিজেদেরকে । কোথাও কোনো খামতি থেকে গেল তা পূরণ করে চলেছে অনবরত । মানুষের দোরগোড়ায় পৌঁচেছে নেতা মন্ত্রীরা তাদের সমস্যার কথা জানতে। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন কর্মসূচীর মাধ্যমে প্রস্তুতি রেখেছে অব্যাহত।

ঠিক সেরকমই বৃহস্পতিবার হিয়াতনগড়ে এক মাদ্রাসায় আয়োজন হয়েছিল তৃণমূলের কর্মী সম্মেলনের। সেই সভায় উপস্থিত ছিলেন পাইকার ২ নম্বর পঞ্চায়েতের ২৫০ নম্বর বুথের তৃণমূল নেতা নীলরতন মাহারা। সেখানেই তিনি করে বসলেন বিতর্কিত এক মন্তব্য যার জন্য রীতিমতো আক্রমণের শিকার হতে হচ্ছে অনুব্রত মণ্ডল ও তার দলকে।

সূত্রানুসারে জানা যায় ওই দিন অর্থাৎ বৃহস্পতিবার ওই সভা থেকে অনুব্রত মণ্ডল নীল রতন মাহারা কে জিজ্ঞেস করেন যে এবারে ভোট কিভাবে বাড়াবেন। আর যা উত্তর এলো তাতে রীতিমতো নিজেও স্তম্বিত অনুব্রত মণ্ডল কি এমন উত্তর এলো ।

নীলরতন মাহারাকে অনুব্রত মণ্ডল প্রশ্ন করেন, ‘কী করে ভোট বাড়াবেন?’। জবাবে নীলরতনবাবু বলেন, ‘ভোট বাড়াবোই। দরকারে বুথ জ্যাম করে ভোট করব।’  যদিও এই মন্তব্য করার সঙ্গে সঙ্গে অনুব্রত মণ্ডল তাকে থামিয়ে দেন এবং বলেন যে ” এসব করা দরকার নেই মানুষ ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে ভোট দেবেন” । কিন্তু মুখ থেকে বেরিয়ে যাওয়া কথা যে আর ফেরানো যায় না । এই মন্তব্য ঘিরে শুরু হয়েছে আক্রমণ এবং চাঞ্চল্য ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য এই নীল রতন মাহাত ২০০৩ সালে তৃণমূলে যোগ দেন। এর আগে বামফ্রন্টের সঙ্গে যুক্ত ছিল। তার পর থেকে বিভিন্ন বেআইনি কাজ বা শাসনি মূলক কাজে উঠে আসে তার নাম । যদিও এমনটা বক্তব্য বিরোধীদের। তবুও ঐদিন করা তার মন্তব্য ঘিরে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে । এ প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেছেন যে ” অনুব্রত মণ্ডলের মনের কথাই বলেছেন ওই নীল রতন বাবু । অনুব্রত মণ্ডল যেমন করে বোম্ব ,দাঙ্গা করে ভোট জেতার মানসিকতা রাখেন তাঁর দলের কর্মীরা ঠিক সেরকমই রাখেন ।

তবে ওই বক্তব্য তিনি যে ভুলবশত বলে ফেলেছেন তেমনটা নয়। তার কারণ সভা থেকে বেরোনোর পর তিনি অনড় ছিলেন তাঁর বক্তব্যে। তিনি বলেছেন কেন্দ্রীয় বাহিনী তাদের কাজ করবে, তৃণমূল করবে তাদের কাজ। কেন্দ্র বাহিনী থাকবে ভোটের বুথে। তার আগে গ্রাম জ্যাম করে দেব । পৌঁছাতেই দেবোনা গেরুয়া শিবিরের সমর্থকদের। তার এ বক্তব্য রীতিমতো অস্বস্তিতে ফেলেছে অনুব্রত মণ্ডল এবং তার দলকে । মানুষের মধ্যে ফেলেছে এক চরম অসন্তোষ। তবে এই বক্তব্য ঘিরে আগামী দিনে কি হতে চলেছে তা এখন শুধুমাত্র সময় বলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button