পরনের শাড়ি দিয়েই ডুবতে থাকা দুটি যুবককে বাঁচালেন মহিলারা, রইলো বিস্তারিত

মানুষের অন্যতম মানবিক ধর্ম হল বি-প-দে-র সময় মানুষের পাশে থাকা। শুধু মানুষ কেন, মানুষের প্রকৃত ধর্ম এটাই সমস্ত জীবের কল্যাণার্থে কাজে আসা। সমাজে এরকম বহু মানুষ আছেন যারা অনবরত মানুষ তথা সমস্ত জীবের উপকারে নি-ম-গ্ন থাকেন। মানুষই মানুষের সাহায্যে আসে এর উদাহরণ সমাজে বহু রয়েছে। এ রকমই একটি নিদর্শন দেখা গিয়েছে তামিলনাড়ুতে। জানা গিয়েছে গত 6 ই আগস্ট তামিলনাড়ুর সিরুভাচুর গ্রামের 12 জন ছেলে ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিল পার্শ্ববর্তী কোটরাই গ্রামে।

খেলার পরেই ওই ছেলেরা পার্শ্ববর্তী কোতারাই বাংলাদেশ নান করতে গিয়েছিল। অনবরত বৃষ্টির জন্য বাংলাদেশের জল কুড়ি ফুট পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছিল। সেখানে উপস্থিত তিন মহিলা এই বি-প-দজ-ন-ক পরিস্থিতিতে ছেলেদের জলে নামতে বারণ করেছিলেন। কিন্তু তিন মহিলার কথা ওই ছেলের দল শোনেনি। হঠাৎ করে চারটি ছেলে পিছলে গিয়ে বাঁ-ধে-র জলে পড়ে যায়। ক্রমশ তারা তলিয়ে যেতে থাকে।

তখন অগ্রপশ্চাৎ বিবেচনা না করেই ওই তিন মহিলা তাদের পরনে শাড়ি খুলে জলে ফেলে দেন সাহায্যের জন্য। সেই শাড়ি ধরে দুই ছেলে কোনভাবে তীরে উঠে আসে কিন্তু বাকি দুজন দু-র্ভা-গ্যবশত জলের গভীরে তলিয়ে যায়। ওই তিন মহিলা বলেছেন, তাঁরা জলে নেমেও বাকি দুজনের সন্ধান পাননি। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই নেটিজেনরা কোন মহিলার উপস্থিত বুদ্ধির প্রশংসা করেছেন।

কিন্তু সেইসঙ্গে সকলি দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাকি দুটি ছেলের জন্য। কিন্তু ঐদিন মহিলা সেই পরিস্থিতিতে তাদের সাহায্য না করতে এলে চারজনেই হয়তো তলিয়ে যেতো জলে। মৃ-ত দুই তরুণের দেহ উদ্ধার করা হয় জল থেকে। 17 বছর বয়সী একজনের নাম পুরান এবং 25 বছর বয়সী এক যুবকের নাম রঞ্জিত। তাদের মৃ-ত্যুতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে তাদের এলাকায়। এর পাশাপাশি ওই তিন মহিলা কে কু-র্নি-শ জানিয়েছেন সকলেই।

ওই তিন মহিলা চারজন ছেলে কি উদ্ধারের জন্য চেষ্টা করেছিলেন প্রাণপণ কিন্তু ভাগ্যের পরিহাসে তাঁরা কেবলমাত্র দুজনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন। একটি মহিলার নাম হল- অনন্ত বল্লি , তাঁর বয়স 34 বছর, মুথামাল , উনার বয়স 34 বছর, এবং সেন্টমিজ সেলভী, যার বয়স ৩৮ বছর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button