হাথরাস ধ’র্ষণ কাণ্ড নিয়ে তো’লপাড় গোটা দুনিয়া, আর আপনি এখনও গভীর নিদ্রায় ঘুমিয়ে? মোদীকে কটাক্ষ নুসরত জাহানের!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-উত্তরপ্রদেশের গণধ-র্ষ-ণকাণ্ডে শুধুমাত্র যে উত্তরপ্রদেশ সরকার প্রশ্নের মুখে তা কিন্তু নয় প্রশ্ন উঠেছে পুলিশি ব্যবস্থা কে নিয়েও। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ১৪ দিন লড়াই জারি রাখার পর অবশেষে মৃ-ত্যু ঘটে ওই নির্যা-তি-তার। কিন্তু এখানে থেমে থাকেনি বর্বরতা । এরপর পরিবার বিনা অনুমতিতে গ্রামের একটি নির্জন জায়গায় পুড়ি-য়ে ফেলা হয় নির্যা-তিতা-র দে-হ এবং তা পুলিশের সামনেই। এই ঘটনাটি সামনে আসতেই ব্যাপকভাবে চাঞ্চ-ল্য ছড়ায় দেশজুড়ে বড় প্রশ্নের মুখে পুলিশ প্রশাসন ।

পরিবার সূত্রে খবর ওই অভিযুক্ত চারজন এলাকার বাসিন্দা এবং রীতিমত হেনস্থা করতে ১৯ বছরের নাবালিকাটিকে । ওই দিন যখন সে তার মায়ের সঙ্গে মাঠে কাজ করতে গিয়েছিল তখন ওই নাবালিকাকে অ-পহ-রণ করে এবং ওই চারজন উচ্চবর্ণের অভিযুক্ত নির্ম-মভা-বে তাকে ধর্ষ-ণ করে এবং মে-রে ফেলার চেষ্টা করে। পরে ওই তরুণী মৃ-ত্যু ঘটলে পুলিশ পরিবারের হাতে তুলে দেয় নি দেহ বরং রাতের অন্ধকারে নির্জন জায়গায় পু-ড়ি-য়ে ফেলেছে।

এই বর্বরতার বিরু-দ্ধে সরব হয়েছেন দেশের প্রথম সারির মানুষ থেকে সাধারণ মানুষ সকলেই। তবে ফের আরও একবার প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করলেন বাংলা সংসদ তথা অভিনেত্রী নুসরাত জাহান।

পুড়িয়ে ফেলা ওই ভিডিওটি পোস্ট করে তিনি টুইট করেন প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে । নুসরত রাগ উগড়ে দিয়ে লিখছেন, “আমরা জানি বিজেপি আসলেই মহিলা ও দলিত-বিরোধী। কিন্তু এই বর্বরতা কল্পনাতীত। বিজেপির জন্যই শাসনের নামে গুন্ডারাজ চলছে। নরেন্দ্র মোদীজি আপনি এখন চুপ কেন?”

যদিও এরপর তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় ও প্রধানমন্ত্রীর নিরবতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। প্রশ্ন তুলেছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক মহলের নেতা-মন্ত্রীরা। তবে যোগী আদিত্যনাথের সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে অপরাধীদের কোনরকম বরদাস্ত করা হবে না। খুব শিগগিরই এদের শাস্তি দেওয়া হবে। দেশজুড়ে এই বর্বরতার সীমা অতিক্রম করে গেছে, মানুষের ভরসা উঠে গেছে পুলিশি ব্যবস্থার উপর ।এমনটাই মনে করছেন অনেকে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button