কলগেট যে কায়দায় যেভাবে লাগালে খুব সহজে হাতের ও মুখের দারুন উজ্জ্বলতা বাড়বে, মাত্র এক সপ্তাহে পাবেন ফলাফল

মানুষ এমন একটি জীব যার অস্তিত্ব কয়েকশো বছর আগে পাওয়া গেছে। তার নিজের অস্তিত্ব বজায় রাখার জন্য সে ক্রমশ লড়াই কিংবা প্রতিকূল পরিবেশের মধ্য দিয়ে নিজেকে মানিয়ে নিয়েছে। বর্তমানে কর্মব্যস্ততার জীবনে প্রত্যেককেই কোনো না কোনো ছোটখাটো পেশার সাথে জড়িত। অর্থাৎ প্রচুর পরিমাণে পরিবেশ দূষণ এবং অন্যান্য আবহা জনিত কারণে যেসব মানুষদের প্রতিনিয়ত বাইরে কাজে বেরোতে হয় তাদের গা হাত পা মুখ অত্যধিক ক্ষতিকর সূর্য রশ্মির প্রভাবে ত্বকের কালচে বর্ণ ধারণ করে।

তবে এমন কিছু ঘরোয়া উপায়ে কিংবা টোটকা রয়েছে যার মাধ্যমে এই কালো রং দূর করা যেতে পারে । তবে আজ এমন একটি অতি সাধারন জিনিসের কথা আলোচনা করব যেটি প্রত্যেকটি মানুষের সকালে ঘুম থেকে ওঠা থেকে শুরু করে রাত্রে ঘুমোতে যাওয়া পর্যন্ত একটা নির্দিষ্ট সময়ে সেটি কাজে লাগে। আর কোনো বস্তুই নয় সেটির নাম কোলগেট। জেনে নেওয়া যাক এই কোলগেট এর কিছু গুণাগুণ যার মাধ্যমে অতি সহজেই কিছু সমস্যা দূর করা যায়।

প্রথমে সাদা রংয়ের কোলগেট কিংবা পেস্টের একটি টিউব নেওয়া দরকার ।তারপর হাত-পা কিংবা যেসব স্থানে প্রচুর পরিমাণে প্যান্ট পড়ে সেই সব স্থানগুলোতে এই কোলগেট পেস্ট টিকেভালভাবে লাগিয়ে নিতে হবে। অনেক সময় ঘাড়ে কিংবা পায়ের পাতা তেও লক্ষ্য করা যায়। এই সমস্ত জায়গা গুলোতে পেস্ট টিকে ভালভাবে লাগিয়ে নিতে হবে।

তারপর কিছুক্ষণ রেখে অর্থাৎ শুকিয়ে যাওয়ার পর স্থানগুলিতে একটি টুথব্রাশ এর সাহায্যে জলের মাধ্যমে ভালো করে ঘষতে হবে। পাঁচ মিনিট মতো ব্রাশটি দিয়ে স্থানগুলোতে ঘষার পর কিছুক্ষণ বাদে রেখে দিলে যায়কি যাবে তারপর জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে নেওয়া ধুয়ে ফেলতে হবে।

তারপর কোন একটি সুতির কাপড়ের সাহায্যে জায়গাগুলোকে ভালো করে পরিষ্কার করে নিয়ে কোনো মশ্চারাইজার কিংবা অ্যালোভেরা জেল যদি বাড়িতে উপস্থিত সেটি স্থানগুলোতে ভালভাবে লাগিয়ে নিতে হবে।এই ছোট্ট সহজ-সরল টোটকা টি মাধ্যমে গায়ে হাতে পায়ে কিংবা যেসব স্থানে প্রচুর পরিমাণে সূর্যালোক গায়ে পড়ে সেই সব স্থানগুলো কালো হয়ে যায়। ঘরোয়া টোটকা টি সাজে তা অতি সহজেই নিরাময় করা সম্ভব। সম্পূর্ণ কাজটি শেষ হওয়ার পরে লক্ষ্য করা যায় স্ক্রীন আগের থেকে অনেক বেশী গ্লো করছে এবং অনেকটাই কালোভাব দূর হয়েছে।ঘরোয়া টোটকা টি সাহায্যে খুব অল্প খরচেই বাড়িতেই স্কিনের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button