পুজোয় 2000 টাকা ভাতা দেবে রাজ্য, কারা পাবেন? সাথে বাড়বে যেসব কর্মীদের বেতন, রইলো বিস্তারিত!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-করোনা অ-তি-মারী-র জন্য দেশে বে-হা-ল অবস্থা। অর্থনৈতিক ভেঙে পড়েছে। একের পর এক বন্ধ হয়ে গেছে বিভিন্ন দোকান পাট থেকে শুরু করে শপিংমল রেস্তোরাঁ ।বন্ধ হয়েছে স্কুল কলেজ। রীতিমতো অভাব-অনটনের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে মধ্যবিত্ত থেকে নিম্ন মধ্যবিত্ত শ্রেণীর মানুষেরা। কাজ হারিয়েছে ইতিমধ্যে কোটি কোটি মানুষ। ঘুরে দাঁড়াবার কোন পথ পাচ্ছে না খুজে তারা। এই অবস্থায় দেবতার দূত হিসেবে যেন তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে রাজ্য সরকার ।

বৃহস্পতিবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে হওয়া একটি সাংবিধানিক বৈঠক এ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী জানান এ রাজ্যের সমস্ত সিভিক ভলেন্টিয়ার এবং হকারদের আর্থিক সাহায্যের কথা । আমরা জানি পুলিশকর্মী থেকে শুরু করে স্বাস্থ্যকর্মী আশা কর্মী বা সিভিক ভলেন্টিয়ার এরা এই সময়ে প্রথম সারির যোদ্ধা ।নিজের জীবনকে ঝুঁকিতে নিয়ে অনবরত দিনের পর দিন কাজ করে চলেছে ।এবার তাদেরই সাহায্যে এগিয়ে এলে রাজ্য সরকার ।

ঐদিন বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান ,”রাজ্যের প্রথম সারির যোদ্ধা হিসেবে পুলিশকর্মী সিভিক ভলেন্টিয়ার এবং আশা কর্মীদের বেতন মাসিক এক হাজার টাকা করে বাড়িয়ে দেওয়া হল । এবং তার সাথে সাথে রাজ্যে ৮১০০০ হকারদের ১০০০ টাকা করে আর্থিক সাহায্যের কথা জানান । তিনি বলেন দেশের এই ভয়াবহ পরিস্থিতিতে যারা প্রথম সারিতে থেকে অনবরত ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে তাদের সাহায্য করা আমাদের কাম্য ।

আগে সিভিক ভলেন্টিয়ারদের বেতন ছিল তিন হাজার টাকা সেখান থেকে বাড়ি আট হাজার টাকা এবং এই সময় আরো ১০০০ টাকা বাড়িয়ে দেওয়া হলো । এর পাশাপাশি রাজ্য সরকার হকারদের একটি তালিকা করেছে। তাদের এমন অবস্থা যে ঠিকমতো খাবার জোগান দিতে পারছে না ।অন্তত এই এক হাজার টাকা দিয়ে পুজোতে একটা করে জামা কিনে দিক পরিবারকে । সবাই মিলে একসাথে আনন্দ করার মজাটাই আলাদা। এমনটাই জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

এর পাশাপাশি তিনি এও জানান রাজ্যের পুজো কমিটি গুলিকে ৫০,০০০ টাকার আর্থিক সাহায্যের কথা। ছোট করে হলেও তবুও হোক কিন্তু যেন থেমে না থাকে ।তাই পুজো কমিটিগুলোকে ৫০০০০ টাকা আর্থিক সাহায্য ঘোষণা করেন ওইদিন। এর পাশাপাশি পুজোর সময় যে বিদ্যুতের বিল সে ক্ষেত্রে ৫০% মুকুব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রাজ্য সরকার। এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছে রাজ্যের সমস্ত শ্রেণীর মানুষেরা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button