ভারত-ইসরায়েলেলের মধ্যে স্বাক্ষর হল এক ঐতিহাসিক চুক্তি, আরও দৃঢ় হলো দুই দেশের বন্ধুত্ব!

ভারতের অন্যতম বন্ধুরাষ্ট্র ইজরায়েল। সেই সাথে ইজরায়েলের অ-স্ত্রের একটা বৃহৎ খরিদ্দার হলো ভারত। বারবার বিভিন্ন ইস্যুতে ভারতের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে ইজরায়েল। ইজরায়েলের বিভিন্ন আধুনিক অ-স্ত্র শস্ত্র কিনেছে ভারত। ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী এক সময় বলেছিলেন, “ভারতের সঙ্গে সঙ্গী কারো সং-ঘর্ষ বাধলে ইজরায়েল সবার আগে সাহায্য করবে ভারতকে।”
ইজরায়েল আগেই ঋণে বারাক-৮ এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম দিয়েছে ভারতকে।

এছাড়াও অত্যাধুনিক অ্যা-রো, আয়রন ডোম, ডেভিডস স্লিং ভারতকে ইজরায়েল দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। এই ‘অ্যা-রো’ হল প্রথম ব্যালিস্টিক ক্ষে-পনা-স্ত্র ধ্বং-সকারী এয়ার ডি-ফে-ন্স সিস্টেম। সাধারণত ব্যালিস্টিক মি-সা-ই-ল বায়ুমন্ডলের অনেক উপরে গিয়ে তারপর হঠাৎই নীচে নেমে এসে নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করে। এই অ্যারো’র সাহায্যে ওই ব্যালিস্টিক মি-সা-ই-ল‌ও ধ্বং-স করা যাবে।

এবার ভারত এবং ইজরায়েলের এই সম্পর্ক আরো দৃঢ় হল। গত বৃহস্পতিবার ভারত এবং ইজরায়েল একসঙ্গে সাংস্কৃতিক সমঝোতা স্বাক্ষর করেছে। ওই চুক্তিতে গঠিত হয়েছে তিন বছরের এক সহযোগ কার্যক্রম। ইজরায়েলের বিদেশমন্ত্রী গবি আশকানজি এবং ভারতের রাষ্ট্রদূত সঞ্জীব স্রিংলা এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছেন বলে জানা গিয়েছে। জানা গিয়েছে বলিউড সিনেমা নির্মাণের কাজ নিয়েও ভারত এবং ইজরায়েল একসাথে কাজ করবে।

ইজরায়েলে নিযুক্ত ভারতীয় রাজদূত সঞ্জীব স্রিংলা বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী 2017 সালের জুলাই মাসে ইজরায়েলে যাত্রা করেছিলেন। তারপর থেকেই এই দুই দেশের সম্পর্ক এক নতুন মাত্রায় পৌঁছায়।” নতুন এই চুক্তিতে বলা হয়েছে, “দুই পক্ষ এই বিষয়ে সহমত পোষন করেছে যে এই চুক্তি দুই দেশের সম্পর্ক কে আরো উন্নতি করবে এবং দুই দেশের যুবকদের মধ্যে দুই দেশের সংস্কৃতিক ইতিহাস নিয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির ওপর জোর দেওয়া হবে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button