‘যৌ’নতার ঘাটতিই ধ’র্ষ’ণের কারণ’ সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে তুমুল বিতর্কে জড়ালেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি!

নিজস্ব সংবাদদাতা: বিগত কিছুদিন ধরে সারাদেশ উত্তাল হতে আছে হাথরসে হয়ে যাওয়া দুর্ভাগ্যজনক এক নৃ-শং-স ধ-র্ষনে–র ঘটনা নিয়ে। দিল্লির নির্ভয়া কাণ্ডের মতই পাশবিক অত্যাচারের ফলে ঝরে গেল আরেক নির্ভয়ার প্রান। যোগীর রাজ্য উত্তরপ্রদেশের এই ঘটনায় ক্ষু-ব্ধ নেটিজেন জগৎ। নারী সুরক্ষার বেহাল দশা নিয়ে উত্তরপ্রদেশের প্রশাসনের অকর্মন্যতা দিনকে দিন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে।

এই অগ্নিগর্ভ অবস্থার মধ্যেই এই ব্যাপারে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি মার্কন্ডেয় কাটজু। উত্তরপ্রদেশের ধ-র্ষ-নের ঘটনার তীব্র নিন্দা করে জানান,’’ হাথরস গ-ণ-ধর্ষ-ণ কাণ্ডের নিন্দা করছি, দোষীদের কড়া শাস্তি দেওয়া হোক। তবে আরেকটা জিনিস মনে রাখা দরকার, যৌ-ন-তা পুরুষের সহজাত প্রবৃত্তি। এমনকী কখনও কখনও এমনও বলা হয়ে থাকে, খাদ্যের পরেই সবচেয়ে বেশি যা প্রয়োজন, তা হল যৌ-নতা।‘

ধ-র্ষ-ণের এবং বেকারত্বকে জড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেন, ’’ভারতের জনসংখ্যা ১৩৫ কোটি, তার মানে দেশের জনসংখ্যা বেড়েছে চারগুণ, কিন্তু চাকরি সেই অনুপাতে কিছুই বাড়েনি। এ বছরের জুনে ১২ কোটি মানুষ চাকরি খুইয়েছেন। তাহলে ধর্ষণ বাড়বে না? ‘‘

তিনি এই বিষয়ের ওপর সামাজিক বিশ্লেষণ করে জানান, “ভারতের মতো রক্ষণশীল সমাজে শুধু বিয়ের মাধ্যমেই যৌ-ন সম্পর্ক হয়। একটা বড় সংখ্যায় কর্মহীন লোকজনের বিয়েই হয় না কেননা কোনও মেয়েই বেকার ছেলেকে বিয়ে করবে না!” স্বাধীনতা পরবর্তী সময়কাল থেকে হিসেব করলে কর্মসংস্থান এবং জনসংখ্যা – এই দুটো বিষয়ের তুলনায় তিনি জানান,” গত সাত দশকে আদর্শ হারে কর্মসংস্থান বৃদ্ধি হয়নি, হতে পারে সেটা দেশে ধ-র্ষ-ণের ঘটনা মাথাচাড়া দেওয়ার একটা কারণ।”

কাটজুর ভেরিফায়েড টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে এমন মন্তব্যের পর নেটিজেনদের একাংশের পক্ষ থেকে তীব্র সমালোচনা চলতে থাকে। ধর্ষণ, যৌনতা, বেকারত্ব- এই তিনটে ব্যাপার কি করে মেলানো সম্ভব,সেই নিয়েই তারা হয়রান। কারোর মতে, “যৌ-ন-তা নারী ও পুরুষ উভয়ের সহজাত প্রবৃত্তি। কিন্তু ধর্ষণ নয়।” কেউবা সাইকোলজি, বায়োলজি, স্যোশিওলজি পড়ে দেখার পরামর্শ দিয়েছেন কাটজুকে।

তার এই মন্তব্যের পর সমালোচনার বান সামলাতে, তিনি ফের ট্যুইট করেন, ’’আমাকে কি না বলা হল, ধ-র্ষ-কের সমর্থনকারী, যৌ-ন-তাবাদী… আরও কত কী। কিন্তু আমি ভুলটা কী বলেছি। বেকারত্ব না কমলে ধ-র্ষ-ণ কমবে না। বেকারত্ব ধ-র্ষ-ণের একমাত্র কারণ নয় ঠিকই, কিন্তু অন্যতম কারণ তো বটে।‘‘

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button