সিবিআইয়ের ত’দ’ন্তের জে’রে সুশান্তের ম’য়না’তদ’ন্তের আসল সত্যতা এলো প্রকাশ্যে, রইলো বিস্তারিত

ক্রমশ বাড়ছে সুশান্তের মৃ’ত্যুর র’হস্য। গত 14 ই জুন সুশান্তের মৃত্যুর পর তীব্র আ’লোড়ন উঠেছে সারা ভারতজুড়ে। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে শুরু করে সংবাদমাধ্যম সর্বত্র সুশান্তের মৃ-ত্যুর খবরে মুখরিত হয়ে রয়েছে। সুশান্তের মৃ’ত্যুতে সারা দেশবাসী সিবিআই ত’দন্তে’র দাবিতে সরব হয়েছিল। বিশেষ করে বেশ কিছু সেলিব্রিটি থেকে শুরু করে সুশান্তের আপা-মর জনগণ সিবিআই ত’দ’ন্তের দাবিতে জোরালো আওয়াজ তুলেছিল।

সুশান্তের প্রেমিকার রিয়া চক্রবর্তীর বি-রু-দ্ধে অভি’যোগ দায়ের করেছেন সুশান্তের পিতা কে কে সিং রাজপুত। সুশান্তের পিতা অভি-যোগ করেছেন যে রিয়া নাকি সুশান্তকে পাগল প্রমাণ করার চেষ্টায় ছিলেন এবং রিয়া সুশান্তের বহু টাকা আ’ত্ম’সাৎ করেছে। অবশেষে সুশান্তের মৃ’ত্যুর প্রকৃত র’হস্য উন্মোচনে শুরু হয়েছে সিবিআই ত’দন্ত। যত দিন যাচ্ছে ততই জ’টিল হচ্ছে সুশান্তের মৃ’ত্যুর র’হস্য। দিন দিন পুলিশের হাতে আসছে নিত্যনতুন তথ্য।

ক্রমশই ধোঁ’য়া’শায় পরিবৃত্ত হচ্ছে সুশান্তের মৃ’ত্যু র’হস্য। সুশান্তের মৃ’ত্যুর রহ’স্য উন্মোচিত করতে গত বৃহস্পতিবার রাতে দিল্লি থেকে মুম্বাই চলে গিয়েছেন সিবিআইয়ের 10 সদস্যের বিশেষ তদ’ন্তকা’রী টিম। গত শুক্রবার সকাল থেকেই বেশ কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে সিবিআই ত’দ’ন্ত শুরু করেছে। সুশান্তের প্রাক্তন ম্যানেজার দিশা সলিয়ান এর মৃ’ত্যুর কারণ উন্মোচিত করতেও সচেষ্ট হয়েছে সিবিআই।

ময়’নাতদ’ন্তের রি’পো’র্টে বলা হয়েছে সুশান্তের ঘাড়ে অথবা গলায় কোনরকম আ’ঘাতে’র চিহ্ন মেলেনি এবং সুশান্তের মাথার বা ঘাড়, গলার কোন হাড় ভে-ঙে যায়নি বলে জানা গিয়েছে ম’য়নাত’দন্তে’র রিপোর্টে। গলায় 33 সেন্টিমিটার লম্বা ফাঁ’সে’র চিহ্ন ছিল। গলায় ডানদিকের দা’গটি’র পুরুত্ব ছিলো 1 সেন্টিমিটার এবং বামদিকের দা’গটি’র 3.5 সেন্টিমিটার পুরুত্ব ছিল। জানা গিয়েছে সুশান্তের চিবুকের চার সেন্টিমিটার নিচে দ’ড়ির দা’গ মিলেছে।

থাইরয়েড গ্রন্থি বা অন্যান্য জায়গায় র’ক্তক্ষ’রণে’র কোন নিদর্শন মেলেনি। সিবিআই অফিসার রা 5 জন চিকিৎসকের বয়ান গ্রহণ করেছে। ওই চিকিৎসকরা সিবিআইকে জানিয়েছেন যে মুম্বাই পু’লিশ চিকিৎসকদের নির্দেশ দিয়েছিল যত তাড়াতাড়ি সম্ভব পো’স্টম’র্টেম সম্পূর্ণ করতে।

কিন্তু সিবিআই রা ডাক্তারদের এই বয়ানে সন্তুষ্ট হন নি। দিল্লির এইমস হাসপাতালের ফরে’নসিক বিশেষজ্ঞরা সিবিআইকে সুশান্তের মৃ’ত্যুর তদ’ন্তে করতে সহায়তা প্রদান করবে। এইমস হাসপাতাল কোন একজন সদস্য বিশিষ্ট একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করেছে। জানা গিয়েছে সুশান্তের ম’য়নাত’দন্তে’র রি’পোর্টে মৃ’ত্যুর কোনরকম সময় উল্লেখ করা নেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button