আধার কার্ডের মতো ‘প্রপার্টি কার্ড’ চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী, এবার থেকে মিটবে সম্পত্তি সংক্রান্ত বিবাদ-ঝামেলা!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-এই দীর্ঘ লকডাউন চলাকালীন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জনগণের উদ্দেশ্যে বেশ কয়েকবার বার্তা দিয়েছিলেন । কিভাবে এই কঠিন সময়ে দেশকে ঠিক রাখতে হবে, জনগণ কিভাবে সচেতন থাকবে বা কিভাবে আমরা আপাতত এই মরণ ব্যাধি থেকে রক্ষা পাবো সে বিষয় নিয়ে জনগণের উদ্দেশ্যে কয়েকটি বক্তব্য রেখেছিলেন তিনি । সেই সূত্রে তিনি আত্মনির্ভর ভারতের কথা বলেন । যেখানে বলা হয়েছিল যে ভারতকে হয়ে উঠতে হবে আত্মনির্ভর। এর পাশাপাশি গ্রামগুলিকে হয়ে উঠতে হবে স্বনির্ভর।

প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে থেকেছে অনড় । তাই গ্রামগুলিকে স্বনির্ভর করার উদ্দেশ্যে তিনি সামিত্ব যোজনা প্রকল্প চালু করেছিলেন । এবং তার বক্তব্যকে সামনে রেখেই তিনি আগামী দিনে চালু করতে চলেছেন এমন এক প্রকল্প যার আওতায় এলে সাধারণ মানুষের জমি সংক্রান্ত যা যা সেগুলি হয়ে যাবে নিমিষে সমাধান। এমনকি ভবিষ্যতে এ সংক্রান্ত কোনো সমস্যাই হবে না ।

তার আগে বলে রাখি আধার কার্ড কে নিয়ে । আধার কার্ড এমন একটি কার্ড যা এখন সরকারি হোক বা বেসরকারি সমস্ত কাজের ক্ষেত্রে লেগে থাকে । প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী গ্রামগুলিকে স্বনির্ভির করে তোলার উদ্দেশ্যে এই আধার কার্ডের মত নেই একটি কার্ড প্রকল্প বেছে নিয়েছেন । তার নাম প্রপার্টি কার্ড। এটি চালু হলে গ্রামের কোনও মানুষ সম্পত্তি ও জমির মালিকানা থেকে বঞ্চিত হবেন না বলে দাবি করছে কেন্দ্রীয় সরকার।

আরো বলা হয়েছে, গ্রামে গ্রামে সম্পত্তির ভাগাভাগি নিয়ে বিবাদ ঘুচবে এই কার্ড একবার চালু হয়ে গেলে! মোট ছটি রাজ্যের ৭৬৩টি গ্রামের মানুষ আপাতত এই কার্ড পাবেন। উত্তরপ্রদেশে ৩৪৬, হরিয়ানার ২২১, মহারাষ্ট্রের ১০০, মধ্যপ্রদেশের ৪৪, উত্তরাখণ্ডের ৫০ এবং কর্নাটকের দুটি গ্রামের মানুষ এই কার্ড পাবেন আপাতত।

২০২৪ সালের মধ্যে প্রায় ছয় লক্ষ গ্রামে পৌঁছে যাবে এই প্রোপার্টি কার্ড । এর পাশাপাশি গ্রামবাসীদের মোবাইলে পাঠানো হবে একটি বিশেষ লিংক যে লিংকের মাধ্যমে তারা এই প্রোপার্টি কার্ডের আবেদন করতে পারবেন । এমনটাই জানা যাচ্ছে সূত্র অনুসারে। তবে এই ধরনের প্রকল্প ভবিষ্যতে কিছুটা হলেও সমস্যা সমাধান করবে সে ব্যাপারে নিশ্চিত কেন্দ্রীয় সরকার ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button