সুশান্তের মৃ’ত্যুর তদ’ন্তভার এবার এলো সিবিআইয়ের হাতে, শোনার পর মুখ খুললেন অঙ্কিতা, করলেন পোস্ট

সুশান্তের মৃ’ত্যুর পর বলিউডের অ’ন্ধকার জগৎ সারা ভারতবাসীর সামনে উন্মোচিত হয়েছে। বলিউডের ঝাঁ চকচকে গ্ল্যামারের পিছনে চলতে থাকা নেপোটিজম এবং প্রভাবশালী তত্ত্বের কালো দিকটি সবার কাছে প্রকাশিত হয়েছে। সুশান্তের মৃ’ত্যুর নিরিখে সারাদেশ উথাল-পাথাল হয়েছে। ইতিমধ্যেই সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীর বি-রু-দ্ধে পাটনার রাজীবনগর থা’নায় অ’ভিযোগ দায়ের করেছেন সুশান্তের পিতা কে কে সিং রাজপুত।

বলিউডের বহু সেলিব্রিটি তথা সুশান্তের আপামর ভক্তরা সিবিআই তদ’ন্তের দাবিতে সোচ্চার হয়েছে। ইতিমধ্যেই বিহারে মা’মলা দায়ের হয়েছে করণ জোহর সলমন খান, মহেশ ভাট, রিয়া চক্রবর্তী, প্রমুখের বি-রু-দ্ধে। সকলেই চেয়েছে সুশান্তের মৃ’ত্যুর প্রকৃত রহস্য উদঘাটনের জন্য সিবিআইয়ের হস্তক্ষেপ। এখনো পর্যন্ত সুশান্তের মৃ’ত্যু আ’ত্মহ’ত্যা না খু’ন সেই বিষয়টি পুরোপুরি ধোঁয়াশায় আবৃত রয়েছে।

অবশেষে সুশান্ত সিং রাজপুত এর মৃ’ত্যুর মা-ম-লা-র রায় দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। গত মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট রায় দিয়েছে কেন্দ্রীয় সংস্থা সিবিআইয়ের হাতে সুশান্তের মৃ’ত্যু’র ত’দন্ত অর্পণ করা হবে এবং সিবিআই কে সাহায্য করবে মুম্বাই পুলিশ। এর দ্বারা মহারাষ্ট্র পুলিশ এবং মহারাষ্ট্র সরকারকে বেশ ভালোরকম হোঁচট খেতে হল। তবে দেশজুড়ে সুশান্তের আপামর ভক্তগণ এবং তাঁর পরিবার-পরিজনেরা অবশেষে সুশান্তের মৃ’ত্যু’র প্রকৃত র-হ-স্য উন্মোচন এর ক্ষেত্রে কিছুটা হলেও আশার আলোর দিশা দেখতে পাচ্ছেন।

অবশেষে সুশান্তের মৃ’ত্যুর র’হস্য উন্মোচনে চূড়ান্তভাবে হতে চলেছে সিবিআই তদন্ত। স্বস্তি পেয়েছেন দেশের অগণিত সুশান্তের অনুরাগী গণ।সুশান্তের মৃ’ত্যুতে সিবিআই তদ’ন্তের নির্দেশ এর পরেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন তার সহ অভিনেত্রী কৃতি শ্যানন। তিনি বলেছেন, “গত দুই মাস যাবৎ খুব অস্থির লাগছিল নিজেকে, অবশেষে আদালতের এই নির্দেশে স্বস্তি পেয়েছি। আশা করি প্রকৃত সত্য খুব শীঘ্রই সকলের সামনে উন্মোচিত হবে।”

এছাড়াও সুশান্তের প্রাক্তন প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখান্ডে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে লিখেছেন, “সত্যের জয় হবেই।” এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন কঙ্গনা রানাওয়াত‌ও। সকলেই সুশান্ত মৃ’ত্যুর ত’দ’ন্ত এবার আশার আলো দেখতে পাচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button