পুলিশের মতো কোমরে বন্দুক গুঁজে জনসমক্ষে ঘুরে বেড়াচ্ছেন দাপুটে তৃনমুল নেতা, ভাইরাল ছবি দেখে সমালোচনার ঝড় উঠলো সোশ্যাল মিডিয়ায়!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-যত বিধানসভার ভোট এগিয়ে আসছে প্র-তি-প-ক্ষ বা বিরো-ধীরা যেন নজর রেখেছে অনাচ কানাচ। যেখানে একটু গো-ল-মাল বা অপ্রত্যাশিত কিছু পেলেই মুহূর্তের মধ্যে হয়েছে সেটি ভাইরাল । রীতিমতো চাপ সৃষ্টি হয়েছে সেই দলের বি-রু-দ্ধে। জড়িয়ে পড়ছে অনেকে। তবে থেমে থাকছে না কেউই ।জবাব দিচ্ছে তার পাল্টা জবাব । এবার আরো একবার বি-ত-র্কে জড়ালেন শাসকদল বর্ধমানের আউসগ্রাম ২ ব্লকের তৃণমূল কার্যকরী সভাপতি আব্দুল্লাহ লালন কে দেখা গেল দিন দুপুরে আ-গ্নে-য়া-স্ত্রে-র সাথে ।স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশ অনুযায়ী আগ্নেয়াস্ত্র প্রকাশ্যে দেখানো বেআইনি।

আ-গ্নে-য়া-স্ত্রের- বা বে-আই-নি আ-গ্নেয়া-স্ত্র র কারবার যে বেড়েছে তা ফের আরও একবার প্রমাণ করলো এই ছবিটি।সম্প্রতি ধার করা কুড়ি লক্ষ টাকা ফেরত না দিলে খু-নের হু-মকি দিয়ে গ্রে-প্তা-র হয় নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায়। নিত্যানন্দ চট্টোপাধ্যায় কে পুলিশ গ্রেফতার করে এবং তার বাড়ি থেকে দুটি লাইসেন্সপ্রাপ্ত আ-গ্নে-য়া-স্ত্র বাজেয়াপ্ত করে। তারই মাঝে ফের আরো একবার ভাইরাল হলো শাসকদলের আরেকটি ছবি ।যেখানে দেখা যাচ্ছে আউসগ্রাম ২ ব্লকের কার্যকরী সভাপতি আবদুল্লাহ লালন কে একটি আগ্নেয়াস্ত্র এর সাথে ।

লাইসেন্সপ্রাপ্ত আগ্নেয়াস্ত্র থাকা যেতেই পারে কিন্তু দিনে দুপুরে তা প্রকাশ্যে আনা বে-আ-ইনি ।আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে সরকার একটি নির্দিষ্ট নির্দেশিকা আছে । ২০১৯ সালে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক আগ্নেয়াস্ত্রের লাইসেন্স প্রদান ও তার ব্যবহারবিধি নিয়ে ওই নির্দেশনামা জারি করেছে। সেই নির্দেশের ২০১৬ অনুচ্ছেদের ২৫ (ক) অনুযায়ী, অপরের ভীতি বা উদ্বেগ তৈরি হয় এমনভাবে আগ্নেয়াস্ত্রের প্রদর্শন করা যাবে না। এই নির্দেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও নির্দেশে বলা হয়েছে।  কিন্তু স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নির্দেশ অ-মান্য করে দিনে দুপুরে আ-গ্নে-য়া-স্ত্র নিয়ে ঘুরে বেড়ানো কে মোটেও ভালো চোখে দেখছেন না রাজনৈতিক মহলের একাংশের ।

প্রশ্ন করতে পিছুপা হয়নি বিরোধীরা।গত দুদিন ধরে আউসগ্রামবাসীর মোবাইলে মোবাইলে যে ছবি ঘুরছে তাতে দেখা যাচ্ছে আব্দুল লালন সাদা প্যান্ট, সাদা জামা পরে রয়েছেন। তাঁর মাথায় জড়ানো রয়েছে সাদা ফেট্টি। তিনি কারোর সঙ্গে ফোন কথা বলতে ব্যস্ত রয়েছেন। ভাইরাল হওয়া ছবিতে আরও দেখা গিয়েছে, আব্দুল লালনের আশপাশেও বেশকয়েকজন দাঁড়িয়ে রয়েছে। লালনের পিছনে রয়েছে একটি মারুতি ভ্যান।

মারুতি ভ্যানের সামনে লাগানো ব্যানারের কিছুটা অংশও ওই ছবিতে দেখা যাচ্ছে। কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি বিলের প্রতিবাদ সংক্রান্ত লেখালেখির একাংশ ওই ছবিতে ফুটে উঠেছে। যদিও এই বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন লালন। তবে এ বিষয় নিয়ে স্থানীয় বিজেপি নেতা স্মৃতিকান্ত মণ্ডল বলেন, তৃণমূলের নেতারা কোমরে আ-গ্নে-য়া-স্ত্র গুঁজে নিয়ে ঘুরবেন এটাই প্রত্যাশিত। আউসগ্রামবাসী ওনাদের কাছ থেকে ভালো কিছু কোনওদিন আশা করেননি।

গত পঞ্চায়েত নির্বাচন ও পরে লোকসভা নির্বাচনের সময়েও তৃণমূলের নেতারা আ-গ্নে-য়া-স্ত্র নিয়েই দাপিয়ে বেরিয়েছেন। তৃণমূলের নেতারা দেশের আইনকানুনের কোন তো-য়াক্কা করেন না।যদি এ বিষয়ে আউসগ্রাম ২ ব্লকের জেলা সভাপতি রামকৃষ্ণ ঘোষ বলেন ” দেবসালা মিছিলে আমিও ছিলাম এই ছবি সেই সময়কার নয়। দল এবং লালনের নামে মি-থ্যা অ-প-প্রচার করার জন্য। বিরোধীদের চ-ক্রা-ন্ত ছাড়া কিছুই নয় ।তবে ঘটনার সত্যতা এখনো প্রমাণ হয়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button