প্রকাশ্যে এলো সুশান্তের ম’য়না’তদ’ন্তের রিপোর্ট, রিপোর্ট ঘিরে উঠছে প্রশ্ন, কী বলছে ময়’নাত’দন্তে’র রিপোর্ট? রইলো বিস্তারিত

অজানার দেশে পাড়ি জমিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। চাইলেও তিনি আর কোনোদিনই ফিরে আসবেন না। অনেক অভি-মান নিয়ে চলে গিয়েছেন এই সদাহাস্যময় মানুষটি। তার এই মহা’প্র’স্থান সৃষ্টি করেছে বলিউডের মধ্যে এক শূন্যস্থান । পাঁচদিন হল নিজের জীবন শে’ষ করে দিয়েছেন এই প্রতিভাবান অভিনেতা। তাঁর অভিনয়ের কদর ছিলো বলিউডে। তাঁর প্রতিটি সিনেমার মধ্যেই তার অভিনয় ক্ষমতার‌ পরিস্ফূটন ঘটেছে।

তাঁর কথা বলা, তার দূর্দান্ত ব্যাক্তিত্ব, তাঁর নাচ, তাঁর স্মিত হাসি সবকিছুই দর্শকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু ছিলো। তিনি ছিলেন প্রাণশক্তিতে ভরপুর এক জীবনসংগ্রামের সৈনিক। অনেক পরিশ্রম করেই তিনি বলিউডে জায়গা বানিয়েছিলেন। কিন্তু কালের করাল স্রোতে ভাসিয়ে দিলেন নিজের জীবন। তাঁর মৃ’ত্যুর পর সামনে এসেছে বলিউডের ঝাঁ চকচকে জীবনের অন্তরালে কতটাই অ’ন্ধকা’র আচ্ছন্ন জীবন রয়েছে সেই বিষয়টি।

জীবনটাকে উপভোগ করতে ভালোবাসতেন সুশান্ত। ভালোবাসতেন মানুষকে, পশু পাখিকেও। তার মৃ’ত্যুর পর অবশেষে সিবিআই ত’দন্তে’র নির্দেশ দিয়েছে মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট। কিছুটা হলেও এবার স্বস্তি পেয়েছেন সুশান্তের আপামর অনুরাগীরা।সিবিআই-এর তদ’ন্তকা’রী অফিসাররা মুম্বাই পৌঁছে বান্দ্রা পু’লিশ স্টেশন থেকে সুশান্ত ম’য়নাত’দন্তে’র রিপোর্ট, সহ তার ফ’রেন’সিক রিপোর্ট, সুশান্তের ফোন, ল্যাপটপ, মুম্বাই পুলিশের তদ’ন্তে বিভিন্নজনের থেকে নেওয়া বয়ান সবকিছু সংগ্রহ করেছেন।

একটি সংবাদমাধ্যম দাবি করে সে কুপার হা’সপাতা’লে সুশান্তের ময়’নাত’দন্ত হয়েছিল সেখানকার এক আধিকারিক বলেছিলেন প্র’য়াত সুশান্তের পরিবারের কোন সদস্যের সেখানে প্রবেশ করার অনুমতি ছিল না। কিন্তু হা’স’পাতা’লে সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায় 15 ই জুন সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী হা’সপাতা’লে ম’র্গ থেকে আরো দুজনের সাথে বের হচ্ছেন। রিয়ার সাথে আরও দুজনকে দেখা গিয়েছে। রিয়া সেখানে 45 মিনিট ছিলেন।

এই বিষয়টি নিয়ে তীব্র প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে রিয়া পরিবারের সদস্য না হয়েও কিভাবে সেখানে উপস্থিত ছিলেন? অনেকেই অভি-যোগ তুলেছেন যে রিয়া সুশান্তের ময়’নাত’দন্তে’র বেশ কিছু রিপোর্ট হয়তো সরিয়ে দিয়েছেন। পুলিশের অনুমতি নিয়ে মৃ’তের পরিবারের লোক পুলিশের উপস্থিতিতে ম’র্গে ঢুকতে পারেন। সমস্ত কিছু তথ্য আবার খুঁ-টি-য়ে ত’দন্ত করবে সিবিআই।
সুশান্তের ম’য়নাতদ’ন্তের রিপোর্ট প্রকাশ এসেছে।

ওই ম’য়’নাতদ’ন্তের রিপোর্টে লেখা রয়েছে, সুশান্তের শরীরে বেশ কিছু অংশে কয়েকটি লি’গাচার চিহ্নের কথা বলা রয়েছে। এই বিষয়টি নিয়ে তীব্র জল-ঘোলা হতে শুরু করে দিয়েছে তাছাড়া ম’য়নাত’দন্তে’র রিপোর্টে মৃ’ত্যু’র সময়ের কোনো উল্লেখ নেই।
মুম্বাই পুলিশ ম’য়না’তদ’ন্তের রিপোর্ট সম্বন্ধে জানিয়েছিল ম’য়নাত’দন্তের রিপোর্টে এমন কোন বিষয় নেই যা থেকে সুশান্তের খু’ন হওয়ার প্রমাণ মিলবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button