কোনো নিরপরাধ মানুষকে যেনো শাস্তি পেতে না হয়, মুর্শিদাবাদ জঙ্গী কার্যকলাপ সম্পর্কে পুলিশের দক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন সুজন চক্রবর্তী!

মুর্শিদাবাদে জ-ঙ্গী সন্দেহে গ্রে-প্তা-র হওয়া নিয়ে ফের আরো একবার বড় সড়ো প্রশ্ন যুদ্ধের মুখে কেন্দ্র-রাজ্য । জাতীয় তদন্তকারী কমিটি বা N I A এর তৎপরতা নিয়ে যেমন অসন্তুষ্ট নবান্ন ঠিক তেমনি রাজ্য পুলিশের তৎপরতা নিয়ে উঠেছে প্রশ্ন । শাসক , বিরোধী দুই পক্ষে থেকে চলছে ঘাত- প্র-তিঘা-ত এর বাকযুদ্ধ ।

মুর্শিদাবাদ থেকে লাদেন এর জ-ঙ্গি সংগঠন আল কায়দার সাথে যুক্ত জ-ঙ্গিদের গ্রে-ফ-তা-র করা হয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা বাহিনী এ বিষয়ে বিন্দু মাত্র জানান নি নবান্ন কে ।তাই রাজ্য প্রশাসন যেমন ক্ষো-ভ প্রকাশ করেছে ঠিক তেমন অপর দিকে রাজ্য পুলিশের তৎপরতা নিয়ে উঠেছে বড় প্রশ্ন । একের পর এক কটাক্ষের সুর আসতে থাকে বিরো-ধী দলের থেকে।

মুর্শিদাবাদের তল্লাশির পর সেখান থেকে ৬ জন এবং কেরালার থেকে আরও তিনজনকে আল-কায়েদার জঙ্গিগোষ্ঠীর সাথে যুক্ত জ-ঙ্গী হিসেবে গ্রে-প্তা-র করে NIA। উদ্ধার করা হয় অনেক আ-গ্নে-য়া-স্ত্র । এ ব্যাপারে এ জেলা পুলিশ সুপার বা রাজ্য পুলিশ কে না জানিয়ে কাজ করাতে রীতিমতো ক্ষু-ব্ধ রাজ্য প্রশাসন ।

ওইদিন মুর্শিদাবাদের প্রাক্তন সাংসদ তথা সিপিএম এর নেতা বদরুদ্দেজা খান বলেন “ওরা যদি সত্যি জ-ঙ্গি হয় তাহলে আইন আইনের পথে চলবে কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার অন্যায় ভাবে অনেক কে জেলে পুরছেন। উদাহরণ স্বরূপ তিনি JNU এর ছাত্র নেতা উমর খালিদ এর কথা বলেন ” । তাহলে কি শুধু মাত্র রাজ্য কে এক বেকায়দায় ফেলার জন্য এরম ভাবনাচিন্তা কেন্দ্রের? প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলের একাংশের ।

তবে কিছুদিন আগে এ ব্যাপারে এ মুখ খুলেছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস নেতা তথা বহরমপুরের সাংসদ অধির রঞ্জন চৌধুরী। তিনি বলেন ” পুলিশ নেতাদের বাঁচাতে গিয়ে সময় পাচ্ছে না ,জ-ঙ্গি ধরার সময় কোথায়? ” কিন্তু তাঁর ই জোট সঙ্গীর মুখে শোনা গিয়েছিলো এক অন্য সুর । তবে এই ব্যাপার এ পরিষ্কার কোনো ইতি না টানলেও এবার রাজ্যের সক্রিয়তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন বিধানসভায় বাম পরিষদীয় নেতা সুজন চক্রবর্তী ।

তিনি বলেন ” জ-ঙ্গি-র কোনো ধর্ম হয় না । কোনো নিরাপরাধ কে যেন এর শা-স্তি পেতে না হয় ।” তিনি আরো বলেন যে ” রাজ্য প্রশাসন নাকে তেল নিয়ে ঘুমোচ্ছেন নাকি? টা যদি না হয় তাহলে বারবার দিল্লিকে সুযোগ কেন করে দিচ্ছে রাজ্য ?” । এখন প্রশ্নের উত্তর দেবার পালা রাজ্যের। কি উত্তর দেয় সেটাই দেখার বিষয় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button