এমন কর্মঠ একজন মানুষ হঠাৎ করে কখনওই আত্মহ’ত্যার কথা ভাবে না : সুশান্তের এইমসের রিপোর্টে ‘আত্মহ’ত্যার’ তথ্যকে মানতে পারলেন না কঙ্গনা

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বলিউডের সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ-ত্যু ঘিরে নেপথ্যে বারবার উঠে এসেছে স্বজনপোষণ এবং ড্রাগস কানেকশনের কথা । সে হিসেব মতো সেই তালিকায় নাম জুড়েছে বিভিন্ন তারকা থেকে পরিচালকদের। তবে সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ-ত্যু-কে ঘিরে সবথেকে বেশি যদি কারও নাম উঠে আসে তবে তিনি হলেন বলিউড কুইন কঙ্গনা রানাওয়াত।

বিভিন্ন বার বিভিন্ন রকম মন্তব্য করে রীতিমতো বিতর্কে জড়িয়ে ছিলেন এই বলিউড কুইন। কিন্তু দমে যাননি তিনি ।কটাক্ষের জবাব পাল্টা কটাক্ষ দিয়ে দিয়েছেন তিনি। এবারও তার অন্যথা হলো না ।ফের আরও একবার শিরোনামের শীর্ষে উঠে এলেন বলিউড অভিনেত্রী।

ইতিমধ্যে সিবিআই ত-দ-ন্তে-র খাতিরে এইমস এর ডাক্তার সুদীপ গুপ্তা জানিয়েছে যে এই ঘটনাটি কোন চ-ক্রা-ন্ত নেই ।এবং সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ-ত্যু একটি আ-ত্মহ-ত্যা। যদিও সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃ-ত্যু ঘিরে এখন অব্দি চলছে জল্পনা। আদৌ এটা আ-ত্মহ-ত্যা নাকি খু-ন? সে নিয়ে দ্বিমত আছে । পক্ষে-বিপক্ষে যতদিন গেছে জুড়েছে তত সমর্থক ,বিরোধী।

কিন্তু এই ত-দ-ন্তে-র বি-রু-দ্ধে এবার সরব হলেন বলিউড কুইন কঙ্গনা রানাউত। তিনি বলেন তারুণ্যে ভরা এক নতুন প্রজন্মের অভিনেতা আচমকাই নিজেকে শেষ করে দিলো? এটাও মানা যায়? । কঙ্গনা লেখেন, ”তারুণ্যে ভরপুর, আসমান্য এক মানুষ আচমকা একদিন সকালে উঠে নিজেকে শেষ করে দিতে পারেন না।

সুশান্ত বলেছিলেন তিনি নিগ্রহের শি-কা-র। ওঁর অ-ভি-যো-গ ছিল মুভি মাফিয়ারা তাঁকে নিষিদ্ধ করেছে। জীবনের আশঙ্কা করেছিলেন। বলেছিলেন, মুভি মাফিয়ার হেনস্তা আর নিষিদ্ধ ঘোষণা করার কথা। ওঁর বিরুদ্ধে ভুয়ো ধ-র্ষ-ণে-র অভিযোগের কারণে মানসিক অশান্তিতে ভুগছিলেন তিনি।”

এর পাশাপাশি তিনি আরও বেশ কয়েকটি দিক তুলে ধরেছেন যেমন

১) SSR বারবার বলেছিলেন বড় প্রযোজনা সংস্থা তাঁর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ওঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র যাঁরা করেছিলেন তাঁরা কারা?

২) কেন সংবাদমাধ্যম তাঁকে ভুয়ো ‘ধ-র্ষণ-কা-রী-‘র তকমা দিয়েছিল?

৩) কেন মহেশ ভাট সু-শা ন্তে-র সাইকো-অ্যানালিসিস করেছিলেন?

যদিও এর পাশাপাশি সিবিআই জানিয়েছে এই ঘটনার ত-দ-ন্ত ফের গোড়া থেকে শুরু করবেন তারা । তবুও এখনো সংশয় কাটেনি আদৌ এটি মৃ-ত্যু না আ-ত্ম-হ-ত্যা ?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button