পাঁচিরের লোহার দরজা ভে’ঙে ভারতীয় পতাকাকে ওপর থেকে নিচে নামিয়ে অ’ব’লেহন মহিলার, শাস্তির দাবিতে সো’চ্চা’র সোশ্যাল মিডিয়া

গত 15 ই আগস্ট সারা ভারত জুড়ে পালিত হয়েছে 74 তম স্বাধীনতা দিবস। এই স্বাধীনতা আমরা অর্জন করতে পেরেছি অনেক বহুমূল্য প্রা’ণের বিনিময়ে। দেশকে পরাধীনতার শৃং-খল থেকে মুক্ত করতে গিয়ে অস্তাচলে গিয়েছেন বহু তরুণ বিপ্লবী। শ-হী’দ ক্ষুদিরাম বসু, শ-হী-দ বীর বিপ্লবী ভগৎ সিং, বিনয়- বাদল- দীনেশ, নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, মাস্টারদা সূর্যসেন সহ আরও নানান তরুণ-তরুণীদের বীর র’ক্তে রা’ঙা হয়ে রয়েছে আমাদের এই পূণ্যভূমি।

দেশের তেরঙা জাতীয় পতাকা কে সম্মান জানানো প্রত্যেক ভারতীয় নাগরিকের কর্তব্য। এই পতাকাকে আজ মাথা উঁচু করে দাঁড় করাতে নিজের প্রা’ণ বিস’র্জ’ন দিয়েছেন বহু বী’র বিপ্লবী। কিন্তু আজ সমাজের বুকে কিছু পিশাচ এবং দেশ’দ্রো’হী’দের দেখা মেলে যারা নিজের দেশের জাতীয় পতাকা কে ক’লঙ্কি’ত করতে দু’বার ও ভাবে না। যেখানে সীমান্তে এই জাতীয় পতাকার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে গিয়ে প্রা’ণ হারা’চ্ছেন সে’না জও’য়া’নরা সেখানে দেশের মাটিতে দাঁড়িয়ে দেশের জাতীয় পতাকাকে অসম্মান করে চলেছে এখনো বেশ কয়েকজন নর’পি’শাচ।

এরকমই একটি ঘ’টনা উপস্থিত হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে। সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভা’ইরাল ওই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে একটি পাঁচিল ঘেরা বাড়ির উঠোনে উত্তোলিত রয়েছে ভারতের জাতীয় পতাকা। সেই পাঁচিলের গেটের বাইরে দাঁড়িয়ে কারো সাথে মোবাইলে কথা বলছেন এক মহিলা। তারপর হ’ঠাৎই তিনি ফোন রেখে দিয়ে রু’দ্র মূর্তি ধারণ করেন এবং একটি বড় পাথর দিয়ে গেটের তালা ভে’ঙে সোজা ভিতরে ঢুকে যান এবং জাতীয় পতাকা কে টে’নে নামিয়ে আনেন।

তারপর তিনি ওই পতাকা নিয়ে তার পা’য়ের কাছে রেখে, তার উপর দিয়েই হাঁটা দিয়ে গেট বন্ধ করেন এবং সোজা পতাকাকে নিয়ে হাঁটা দেন। জাতীয় পতাকার এরকম অ’পমান দেখে নি’ন্দায় সরব হয়েছে নেটিজেনরা। সকলেই ওই মহিলার ক’ঠোর শা’স্তির দাবি তুলেছেন। কি কারণে মহিলা এরকম ন্যা’ক্কার’জনক ঘটনা ঘটালেন তা জানতে চাইছে নেট দুনিয়া। সকলেই বলছেন দেশের জাতীয় পতাকাকে পা’য়ের নিচে নামিয়ে এইভাবে অপ’মান করার জন্য ওই মহিলার উচিত শি’ক্ষা হওয়া উচিত।

https://www.facebook.com/ruposikolkata/posts/2855410648011954

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button