“বাড়ির মেয়েদের আগে সঠিক সংস্কার শেখাক পরিবার”- হাথরস কান্ড নিয়ে মুখ খুলে বিপাকে বিজেপি বিধায়ক!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-একদিকে উত্তরপ্রদেশের গণধ-র্ষ-ণকাণ্ডে উত্তাল গোটা ,দেশ অন্যদিকে চলছে তাকে ঘিরে তর্ক-বিতর্ক কটাক্ষ। জড়িয়ে পড়ছেন বিতর্কিত মন্তব্যে একের পর এক প্রথম সারির নেতা মন্ত্রীরা। বলাবাহুল্য বিজেপির নেতা মন্ত্রীরা। আরো একবার বে-ফাঁ-স মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন বিজেপি নেতা সুরেন্দ্র সিং। যদিও এর আগে তিনি তার নিজস্ব বক্তব্যের জন্য বারবার বিতর্কে জড়িয়েছেন। তবে এই বিতর্ক যেন বাকি সব বিতর্ককে ছাপিয়ে গেছে।

এখনো এদেশ নারী সুরক্ষা তে ব্যর্থ। কিন্তু একদল থেকেই থাকে যারা সব কিছুর বি-রু-দ্ধে গিয়ে দোষারোপ করে নারীদেরকে, তাদের চরিত্র কে ,তাদের পোশাক-আশাকে। আঙ্গুল তোলে তাদের পরিবারের শিক্ষাকে। ঠিক সেরকমই কিছু একটা মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন বিজেপি নেতা সুরেন্দ্র সিং। কি এমন মন্তব্য করলেন তিনি যার জন্য শুরু হলো এত বিতর্ক ?জানাবো আপনাদের।

সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া বয়ানে তিনি বলেছেন, ‘না শাসন করে. না তলোয়ার চালিয়ে শুধুমাত্র মেয়েদের সঠিক সংস্কারেই এই ধরণের ঘটনা আটকানো সম্ভব৷ ’ তিনি এখানেই থামেননি জানিয়েছেন, ‘সমস্ত পরিবারের উচিত নিজের বাড়ির মেয়েদের ভালো সংস্কার দিয়ে বড় করা৷ শুধু সরকার ও ভালো সংস্কারের সাহায্যেই দেশের উন্নতি করা সম্ভব৷  ঠিক মানসিকতা কোন জায়গায় পৌছাল এরকম একটি মন্তব্য করতে পারেন তা সত্যি জানা নেই । এরকম প্রশ্ন রাজনৈতিক মহলের একাংশের।

ইতিমধ্যে এই ঘটনাকে তদ-ন্ত করার জন্য যোগী আদিত্যনাথ সরকার সিবিআইয়ের প্রস্তাব জারি করেছে । তারমধ্যে সিট শুরু করে দিয়েছে এই ঘটনা ত-দ-ন্ত । ইতিমধ্যেই SIT পীড়িতার বাবা-র বয়ান নথিভুক্ত করতে পারেনি৷ শনিবার সন্ধ্যাবেলায় পীড়িতার পরিবারের বয়ান নথিভুক্ত করার জন্য সিট হাতরসে পৌঁছয়৷

কিন্তু নির্যাতিতার বাবা-র স্বাস্থ্য একেবারে ঠিক নেই৷ এই অবস্থায় দীর্ঘ সময় ধরে তাঁর পক্ষে বসে বসে এই ধরণের জবানবন্দি দায়ের করা সম্ভব নয়৷ সিটের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ওঁনার শরীর ঠিক হলে ফের তাঁর কাছে যাওয়া হবে৷ তাঁরা জানিয়েছেন পরিবারের অন্য কেউ যদি এই বিষয়ে কিছু জানাতে চান তাঁরাও জানাতে পারেন৷ তবে বিজেপির ওই বক্তব্য ঘিরে রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে নেট দুনিয়ার সাথে বিরোধী দলের শিবিরে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button