সোশ্যাল মিডিয়ায় সাকিবের মেয়েকে অ’শ্লীন ভাষায় কটূ’ক্তি, থানায় দায়ের অভি’যোগ

বর্তমানে মানুষকে বিনোদনের রসদ যুগিয়ে চলেছে সোশ্যাল মিডিয়া। এই সোশ্যাল মিডিয়ার হাত ধরেই মানুষের মধ্যে বৃদ্ধি পাচ্ছে বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কিত জ্ঞান। পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে চলা নানান ঘটনাবলী মুহুর্তের মধ্যে উঠে আসছে সোশ্যাল মিডিয়ার পাতায়। অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করেন বিনোদনের মাধ্যম হিসেবে, আবার অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়া টাকে এক কাজের ক্ষেত্রেও ব্যবহার করে থাকেন।

বর্তমানে কর্মসংস্থানের নতুন দিগন্ত উন্মোচিত করেছে এই সোশ্যাল মিডিয়া। কিন্তু অনেকেই এই সোশ্যাল মিডিয়াকে কু’কাজের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করে ফেলছে। অনেকেই অসৎ কাজে লাগাচ্ছে এই সোশ্যাল মিডিয়াকে। ঠিক এ রকমই একটি ঘটনা ঘটেছে বাংলাদেশে। প্রায়শই সেলিব্রিটিদের থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষকে সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র ক-টা-ক্ষে-র মুখোমুখি হতে হয়। বাংলাদেশের এক জনপ্রিয় ক্রিকেটারের মেয়েকে সোশ্যাল মিডিয়ায় জঘন্য কটুক্তি করা হয়েছে যা নিয়ে তোলপাড় হয়েছে নেটিজেন মহল।

বাংলাদেশের বিখ্যাত অলরাউন্ডার ক্রিকেটার তার বড় মেয়ের ছবি পোস্ট করেছিলেন পাট ক্ষেতের মাঝে। ওই শিশু কন্যার ফটোটি দেখে স্নেহময় চিন্তাভাবনার উদ্ভব হওয়াই স্বাভাবিক। কিন্তু বেশ কিছু নেটিজেনদের মধ্যে দেখা গেল বিকৃত মানসিকতার পরিচয়। ছবিটিতে কয়েকজন নেটিজেন অশ্লীল কমেন্ট করেন। এই অ-শ্লী-ল কমেন্টগুলো দেখে সরব হয় নে-ট দুনিয়া। তৈরি হয় বিতর্কের আ-গুন।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাই-বারক্রা-ই-ম শাখার পক্ষ থেকে গত শনিবার এই মর্মে অভি-যোগ দা-য়ে-র করা হয় রামনা থানায়। পুলিশ জানিয়েছে অভি-যোগে কারও নাম উল্লেখ করা না থাকলেও অ-শ্লী-ল এবং কু-রু-চি-ক-র মন্তব্যের জন্য ৭ থেকে ৮ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের বি-রু-দ্ধে খুব শীঘ্রই ব্যবস্থা নেবে পুলিশ।ওই শিশু কন্যা হলো বিখ্যাত বাংলাদেশী অলরাউন্ডার শাকিব আল হাসানের বড় মেয়ে আলাইনা হাসান।

এই ঘটনায় যথেষ্ট হত-বাক শাকিব এবং তাঁর স্ত্রী। তাঁদের ফুলের মত শিশু কন্যার ফটোতে এমন জ-ঘ-ন্য কমেন্ট তাঁরা কখনোই আশা করতে পারেননি। অভি-যুক্তদের শা-স্তি-র দাবি তুলেছেন তাঁরা। ছবিটিকে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরিয়ে দিয়েছেন শাকিব। যে মানুষদের মধ্যে এমন জঘন্য মনোবৃত্তি রয়েছে তারা কিভাবে সভ্য সমাজের অন্তর্ভুক্ত তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিদ্বজ্জনেরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button