বাড়িতে যে সহজ তিনটি উপায়ে কিডনি একদম পরিষ্কার করতে পারবেন খুব সহজে, রইল দারুণ ঘরোয়া পদ্ধতি!

নিজস্ব প্রতিবেদন :- প্রতিনিয়ত যা-ন্ত্রিক কো-লাহল এর মাঝে আমাদের অনিয়মিত জীবনযাত্রার ফলে শ-রীরের উ-পর চা-প পড়তে থাকে এবং যাবতীয় রো-গ ব্যা-ধি সৃষ্টি হয় আমরা জানি যে কিডনি আমাদের দেহে র-ক্ত পরিশ্রুত করে অর্থাৎ বাড়ির ফিল্টার যেমন জল শোধন করে ঠিক তেমনি র-ক্তের যাবতীয় নোংরা ব-র্জ্য পদার্থ গু-লিকে এক জায়গায় জমা রাখে কিডনি । এবং শুদ্ধ র-ক্ত সঞ্চালন করে গোটা দেহের মধ্যে ।

যার ফলে আমাদের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ গু-লি থাকে । কখনো কখনো কি-ডনির মধ্যে অতিরিক্ত নোং-রা জমে যায় এবং যার ফলে এ-কাধিক রো-গের সৃষ্টি হতে পারে এই স-মস্যা থেকে যদি আপনি মুক্তি পেতে চান তাহলে অতি অবশ্যই আপনাকে এই পদ্ধতিগুলো অবলম্বন করতে হবে যেমন জল খাওয়া । আমরা জানি যে আমাদের শরীরের ৭০% শতাংশ জল দিয়ে তৈরি । কোন একটি গাড়ি বা যানবাহন যেমন পেট্রোল ডিজেল চালিত হয় না ঠিক তেমনি মানব শরীর চালিত হতে পারে না জল ছাড়া ।

তাই জল খাওয়া অত্যন্ত জরুরি । যদি আমরা কোন কারনে কম জল খায় তাহলে প্র-স্রাব থেকে জল শোষণ করে কি-ডনি আলাদাভাবে মজুদ করে রেখে দেয় । যার ফলে পে-চ্ছাবে জ্বা-লা ইত্যাদির মতো ঘটনা দেখা যায়। দ্বিতীয় হল ধনেপাতার রস:- একদল বিজ্ঞানী বলছেন যে ধনেপাতা হল এমন এক ধরনের সবজি যার মধ্যে প্রচুর পরিমাণে খনিজ পদার্থ মিনারেলস ইত্যাদি মজুত থাকে আপনি জানলে অবাক হবেন যে শুধু কি-ডনিই নয়। ধনেপাতা মহৌ-ষধ। একআঁটি ধনেপাতায় রয়েছে ১১% ফাইবার, ৪% প্রোটিন, ১% ক্যালরি, ১% কার্বোহাইড্রেট, ১% ফ্যাট। ম্যাঙ্গানিজ ২১%, পটাসিয়াম ১৫%, কপার ১১%, আয়রন ১০%, ক্যালসিয়াম ৭%।

এতে রয়েছে ৩৮৮% ভিটামিন ‘কে’, ১৩৫% ভিটামিন ‘এ’, ৪৫% ভিটামিন ‘সি’, ১৬% ফলেট। ধনেপাতায় হাজার গুণ। এই রেমিদি তৈরি করার জন্য প্রথমে আপনাকে কিছুটা পরিমান জল নিতে হবে । এবং তার মধ্যে যোগ করে দিতে হবে এক আঠি ই ধনেপাতা কু-চি । প্রায় ১০ মিনিট ধরে গ্যাসের ওভেনে ধনেপাতা এবং জলকে ভালো করে ফোটাতে হবে । তারপর একটি ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে সেই জলকে বোতলের মধ্যে ভরে রাখতে হবে । চাইলে এটি আপনি ফ্রিজে রাখতে পারেন ।

এবং প্রতিদিন সকালবেলা একগ্লাস করে খেতে হবে তাহলে আপনার কি-ডনি ভেতর থেকে একদম পরিষ্কার হয়ে উঠবে কথা দিলাম। এবং সবশেষে হচ্ছে হার্বাল টি:- এই হারবাল টির মধ্যে প্রচুর পরিমাণে খনিজ উপাদান ভিটামিন থাকে যা কি-ডনি পরিষ্কার করতে বা কিডনির নোংরা পরিস্কার করতে সাহায্য করে তার পাশাপাশি কি-ডনিতে পা-থর হওয়া থেকে রক্ষা করে এটি বহু পুরনো একটি আয়ুর্বেদিক টোটকা ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button