জারি রেড এলার্ট, আজই ফোন থেকে ডিলিট করুন এটি, নইলে গায়েব হয়ে যেতে পারে ব্যাঙ্কের সমস্ত টাকা!

মানুষের চাহিদার কোনো অন্ত নেই। মানুষের জীবনে অর্থ একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বহন করে। শুধুমাত্র পেটের তাগিদেই মানুষ বিভিন্ন পেশা বেছে নেন। অনেকেই কষ্ট, পরিশ্রম করে নিজেকে সাফল্যের চূড়ায় আসীন করেন। আবার অনেকেই কোনোরূপ পরিশ্রম না করে অসৎ উপায়ে একদিনেই কোটিপতি হয়ে আকাশ ছোঁয়ার বাসনা পোষণ করছন।

অনেকেই জীবনে প্রচুর অর্থ উপার্জন করেও মানসিক সন্তুষ্টি লাভ করতে অক্ষম হন। কারণ তাদের চাহিদার সীমা শেষ হয়না। তারা সবসময়ই চিন্তায় মগ্ন থাকেন যে আরো কিভাবে, কি উপায়ে কিছু টাকা আরো বেশি কামানো যায় ! সে অসৎ পথেই হোক না কেন ! কিন্তু জীবনে অর্থ উপার্জনের পাশাপাশি নিজের মনুষ্যত্বকেও বিকিয়ে দেওয়াটা একদমই অনুচিত।

বিশেষ করে বর্তমানে এই ডিজিটালাইজেশনের যুগে সাইবার অপরাধের সংখ্যা বেড়েছে ব্যাপকহারে। ব্যাংকিং সিস্টেম কে এই ডিজিটাল আওতায় আনা হওয়ার পরেই, সাইবার অপরাধের সংখ্যাও ব্যাপক হারে বেড়ে গিয়েছে। প্রায়শ‌ই শোনা যায়, ব্যাংকের গ্রাহকদের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা গায়েব হয়ে যাচ্ছে। ইন্টারনেট ব্যাংকিং পরিষেবা লাভ করতে গিয়ে জালিয়াতি চক্রের শি-কা-র হন বহু মানুষ।

এবার একটি জনপ্রিয় প্লাটফর্ম নিয়ে শুরু হয়েছে এই সাইবার অ-প-রা-ধের কারবার। রিলায়েন্স বলেছে, তাদেরই জনপ্রিয় একটি প্ল্যাটফর্ম এর নামে ওয়েবসাইট তৈরি করে গ্রাহকদের ফাঁসিয়ে দিচ্ছে সাইবার অপরাধীরা। রিলায়েন্স জানিয়েছে তারা এখনও ফ্রেঞ্চাইজি মডেল ডিলারশিপ উদ্ভাবন করেনি। তবু কিছু কিছু অসাধু ব্যক্তি নিজেদের এজেন্ট বলে পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন জায়গা থেকে অসদুপায়ে টাকা তুলছেন ।

রিলায়েন্স এর এই প্লাটফর্ম হল জিওমার্ট। জিওমার্টের নামে ওয়েবসাইট তৈরি করে এই প্রতারণা চক্র কাজ করছে। তাই রিলায়েন্স গ্রাহকদের সতর্ক করেছে, যদি কোনো গ্রাহক জিওমার্টের নামে এরকম ভুয়ো ওয়েবসাইটে ঢুকে থাকেন, তাহলে তাঁরা যেন শীঘ্রই তাঁদের ব্রাউসিং হিষ্ট্রি ডিলিট করে দেন। না হলে বড়োসড়ো প্রতারণা চক্রের শি-কা-র হবেন গ্রাহকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button