পুলিশের লাঠির মার থেকে কংগ্রেসের দলীয় কর্মীকে নিজে হাতে বাঁচালেন প্রিয়াঙ্কা, তুমুল ভাইরাল ভিডিও

নিজস্ব সংবাদদাতা: বিজেপি পরিচালিত ইউপি সরকারের বিরু-দ্ধে ঠিক যেনো প্রিয়ঙ্কাকে পাওয়া গেল লড়াকু নেত্রী রূপে। দাদা রাহুল গাঁধীকে বসিয়ে তিনি নিজেই গাড়ি চালিয়ে নিয়ে গেলেন। আবার শনিবার পুলিশের এলোপাথাড়ি লাঠিতে আক্রান্ত কংগ্রেস কর্মীকে রক্ষা করতে ভিড়ের মধ্যে গিয়ে উদ্ধার করলেন সেই মানুষটিকে। প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর এই নির্ভীক কাজের ভিডিওটি আপাতত সকলের চর্চার কেন্দ্রবিন্দু।

শনিবার উত্তরপ্রদেশের হাথরাসে মৃত দলিত তরুণীর পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ও উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়ঙ্কা গান্ধী। এছাড়াও দলীয় কর্মীরা তাদের সঙ্গেই ছিলেন। দিল্লি-নয়ডা ডাইরেক্ট ফ্লাইওভারের টোল প্লাজা পার হওয়ার ঠিক পরেই কংগ্রেস কর্মী এবং সেখানে মোতায়েন থাকা ইউপি পুলিশের প্রথম দফায় সংঘর্ষ হয়।

ভাইরাল এই ভিডিওতে সাদা কুর্তা পরা এক ব্যক্তি পুলিশের লাঠির চোটে প্রায় ভূমিসজ্জায়। সেই দৃশ্য দেখার পর গাড়ি থেকে নেমে আসেন প্রিয়ঙ্কা। গাঢ় নীল কুর্তা ও সাদা মাস্ক পরিহিতা প্রিয়াঙ্কা গান্ধী একটি হলুদ ব্যারিকেড লাফ দিয়ে পার হয়ে চলে যান। তারপর সেই মার খেতে থাকা ব্যক্তিটিকে আড়াল করেন এবং রাস্তার ধারে বসান। পুলিশের মার থেকে লোকটিকে বাঁচাবার জন্যে প্রিয়াঙ্কা সেখানেই লোকটির পাশে দাড়িয়ে ছিলেন।

ততক্ষনে কংগ্রেসের সমর্থক কর্মীরা ছুটে আসেন। তারপর তারা এসে সেই লোকটিকে উদ্ধার করেন এবং প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে সেই স্থান থেকে সরিয়ে নিয়ে যান সেখানেই রাস্তার ধরে একটি অন্য স্থানে। পরে লোকটিকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়। পুলিশের লাঠিতে বেশ জখম হয়েছিলেন তিনি। যদি প্রিয়াঙ্কা সেই মুহূর্তে তাকে উদ্ধার না করতেন, তাহলে হয়ত অবস্থা আরো সঙ্গীন হতে পারত সেই ব্যক্তির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button