‘পিসি ভাইপোকে একসাথে স্যানিটাইজ করে দূর দূর করে বাংলা থেকে তাড়ানো হবে’- ভরা সভায় চিৎকার করে বললেন লকেট!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-আর মাত্র হাতে গোনা কয়েকটি মাস তারপরে বাঙালির ভোট । সামনে একুশের ভোটকে কেন্দ্র করে কে আসবে ক্ষমতায় তা নিয়ে জ-ল্প-না তুঙ্গে । কে হবে বাংলার শাসক দল? সে নিয়ে আছে ঢের সংশয়। কিন্তু অব্যাহত থেকেছে লড়াই ।

তাই পাড়ায় পাড়ায় মোড়ে মোড়ে দেখা যাচ্ছে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মিটিং মিছিল কর্মসূচি ইত্যাদি। মানুষের দোড়গোড়ায় এসে পৌঁছেছে তাদের অসুবিধা জানার জন্য তার সাথে সাথে বর্তমান সরকারের ভুল ত্রুটির দু-র্নী-তি তুলে ধরার জন্য । বাকিটা হয়তো জনগণের সিদ্ধান্ত সিদ্ধান্ত ।

আমরা এর আগে দেখেছি এ ভোটকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীরা একে অপরের বি-রু-দ্ধে ছুড়েছেন কটাক্ষ। এ ঘটনা নতুন নয় তবে ফের আরও একবার নবান্ন অভিযান এর পর তৃণমূলকে দুষলেন বিজেপি নেত্রী লকেট চ্যাটার্জি । তার সাথে সাথে তিনি মানুষকে অনুরোধ করেছেন যাতে সামনের বিধানসভা ভোটে যোগ্য উত্তরাধিকারীকে এরাজ্যে ক্ষমতায় আনে।

ঐদিন এক সভা থেকে তিনি তুলে ধরেন নবান্নের অভিযানের কথা। তিনি বলেন” হাজার হাজার মানুষ শান্তিপূর্ণভাবে নবান্ন অভিযান করেছিলেন। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী তার দুদিন আগেই ভয়ে তালা দিয়ে চলে যায় ঝাড় গ্রামে। তিনি যদি মানুষের জন্য কাজ করে থাকতেন তাহলে ১৪ তলায় বসে থাকতেন এবং বলতেন কে আসবি আই আমি মানুষের জন্য কাজ করেছি আমার কোন ভয় নেই।

কিন্তু তিনি তা করেননি । অতএব তিনি জানেন যে আদতে এই কয়েক বছরে মানুষের জন্য তিনি কিছুই করেননি । টাকা পয়সা সব নেতা মন্ত্রীর খেয়েছেন । পুরনো রাস্তাগুলি এখনো সরিয়ে উঠতে পারেননি কিন্তু উদ্বোধন হচ্ছে দিকে দিকে ।”

শুধু মাত্র এখানেই থেমে থেমে থাকেননি । তিনি এও বলেন যে “স্যানিটাইজার এর নাম করে নবান্ন কে বন্ধ রাখা হয়েছিল কিন্তু স্যানিটাইজার হবে এবং তা করবে ভারতীয় জনতা পার্টি । পিসি এবং ভাইপোকে উভয়কেই স্যানিটাইজার করে বাংলা থেকে দুর দুর করে তারাবো ।” রীতিমতো লকেট চট্টোপাধ্যায় এই মন্তব্য সামনে আশাতে কিছুটা হলেও বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছে । তবে মানুষ জানে আগামী দিনে কাকে আনতে হবে ক্ষমতায় ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button