নেই দুই পা, তবু মনের জোরে পায়ে লোহার পাত লাগিয়ে দৌড় প্রতিযোগিতায় দৌড়ে প্রথম স্থানে যুবক, ভাইরাল ভিডিও

নিজস্ব প্রতিবেদন:- কথায় আছে ইচ্ছাশক্তি প্রবল হলে যে কোন বাধা কে আর বাধা বলে মনে হয়না। অনায়াসে পেরিয়ে যাওয়া যায় সেই বাধার বেড়াজাল। কিন্তু আমাদের জীবন প্রতিনিয়ত আমাদেরকে এমন এক পরীক্ষার সম্মুখে ফেলে যা থেকে অনায়াসে ইচ্ছাশক্তি দমে যেতেই পারে ।তবুও নিজের স্বপ্ন উড়ান এর তাগিদে ইচ্ছাকে বাঁচিয়ে রাখার প্রাণপণ চেষ্টা আমরা অনেকেই করে থাকি। আবার অনেকে খুব সহজে মাথা নত করে হার স্বীকার করে নেয়।

জীবন এক রহস্য মঞ্চ এখানে প্রতিনিয়ত প্রতিটি দিন অপেক্ষা করে নতুন নতুন ঘটনা যা হয়ত চলতি পথে কে থমকে দিতে পারে। নেমে আসতে পারে চোখের সামনে অন্ধকার। চোখের সামনে দেখতে হতেই পারে নিজের ইচ্ছের মৃত্যু। নেট দুনিয়ার ভাইরাল হয়েছে এমনই এক ঘটনা যা লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবনকে আবার ঘুরে দাঁড়াবার অনুপ্রেরণা জাগিয়েছে।

আবার নতুনভাবে ভাবতে শিখিয়েছে তাদের যে এখানেই শেষ নয় বন্ধু” হাল ছেড়ো না বরং কণ্ঠ ছাড়ো জোরে”। আমি ঠিক কি ব্যাপারে বলছি এখন বুঝতে পারছেন না নিশ্চয়ই ? না বোঝাটা খুব স্বাভাবিক কারণ এরকম ঘটনা সচরাচর খুব কমই দেখা যায় ।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া তে একটি ভিডিও ভাইরাল হয় যেখানে দেখা যায় এক প্রতিবন্ধী দৌড়ে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছে।অবাক আর আজগুবি মনে হলেও এটাই আসলেই বাস্তব এবং খুব ধারালো বাস্তব । কথায় আছে “practice makes a man perfect” এ যেন তারই প্রয়াস। ভিডিওতে দেখা যায় দুটি পা একেবারে বিকল হয়ে যাওয়া একটি মানুষ একটি দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ নেয়।

কিন্তু কিভাবে ?তার আগে বলে রাখি সময়ের সাথে সাথে উন্নত হয়েছে দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা। তার পায়ের নিম্নাংশের লোহার পাত লাগানো আছে যার সাহায্যে সে আমাদের মতন স্বাভাবিকভাবেই হাঁটতে চলতে পারে বা দৌড়াতে পারে। কিন্তু তা বলে দৌড় প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ ? আজ্ঞে হ্যাঁ, এরকমই সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে ওই প্রতিযোগী এবং শুধুমাত্র অংশগ্রহণ নয় ,প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছেন তিনি।

নিজের প্রবল ইচ্ছা শক্তির কাছে পরিস্থিতি কে আরও একবার মাথানত হতে দেখল সমস্ত স্টেডিয়ামে থাকা দর্শক। ভিডিওটি সবার সামনে আসতে উত্তেজনা ছড়িয়ে পরে নেট দুনিয়ায়। প্রচুর মানুষ শুভেচ্ছার পাশাপাশি জানিয়েছে অভিনন্দন ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button