রাতের কলকাতায় মিমি চক্রবর্তীকে ‘কটূক্তি’, ‘অ-শ্লী-ল অঙ্গভঙ্গি’,- ট্যাক্সি চালককে পুলিশে দিলেন সাংসদ মিমি

সমাজে পুরুষ-মহিলা মিলেমিশে একত্রিত ভাবে বসবাস করে। তবে বসবাস করলেওআমাদের সমাজ পুরুষতান্ত্রিক বলে মনে করা হয় অর্থাৎ সমাজে নারীর স্থান কিংবা নারীদের প্রাধান্য খুবই কম। প্রতিদিনের খবরের কাগজ খুললেই চোখে পড়ে নারী নির্যাতন কিংবা কোনো নারীকে কটুক্তি করা।

এছাড়াও প্রতিনিয়ত কোথাও-না-কোথাও ধ-র্ষ-ণে-র কাণ্ড ঘটে চলেছে।এমনই একটি ঘটনার শি-কা-র হলেন টলিউড এর জনপ্রিয় অভিনেত্রী তথা যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রে বিজয়ী প্রার্থী মিমি চক্রবর্তী। সোমবার রাতে এই ঘটনাটি ঘটেছে বলে জানা যায় । এক ট্যাক্সি চালককে পুলিশের হাতে তুলে দেন অভিনেত্রী তথা বিজয়ী সংসদ মিমি চক্রবর্তী।

সূত্র মারফত জানা যায় সোমবার রাতে এই অভিনেত্রী প্রতিদিনের মতোই জিম থেকে বাড়িতে ফিরছিলেন গাড়ি করে। ঐদিন রাতে বালিগঞ্জ এবং গড়িয়াহাট এর মাঝামাঝি এলাকায় ট্রাফিক সিগনালে যখন গাড়ি দাঁড়িয়েছিল তখন একটি গাড়ি তার গাড়িটিকে ওভারটেক করে। এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অভিনেত্রী তখন তার গাড়ির কাঁচ নামান এবং লক্ষ্য করেন পাশে দাঁড়িয়ে থাকা ট্যাক্সিচালককে তার দিকে অশ্লীল ভাবে তাকিয়ে বাজে ইঙ্গিত করছেন। এরপর গাড়ি থেকে নেমে ওই অভিযুক্ত ট্যাক্সিচালককে বলেন তাকে পুলিশে দেওয়া হবে।

তারপর তিনি দ্রুত থানায় ফোন করলে পুলিশ কিছুক্ষণের মধ্যেই হাজির হয়। সমস্ত ঘটনা জানার পর পুলিশ ওই ট্যাক্সিচালককে গ্রে-প্তা-র করে। এই প্রসঙ্গে অভিনেত্রী জানান সরকারি গাড়ি দেখেও যদি ট্যাক্সিচালক তার আরোহীকে উদ্দেশ্য করে প্রকাশ্যে এমন ভাবে অশ্লীল ইঙ্গিত করতে থাকেন তাহলে সাধারন মানুষের অবস্থা কতটা করুন হতে পারে। তাই তিনি কোনো কিছুর ভ্রুক্ষেপ না করে চটজলদি গাড়ি থেকে নেমে প্রতিবাদ জানান এবং পুলিশের কাছে অ-ভি-যো-গ দায়ের করেন।নজর বিহীন ঘটনা টি সমাজের প্রত্যেকটি নারীর কাছে একটি দৃষ্টান্ত হয়ে উঠবে বলে জানা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button