ঘরোয়া মাত্র তিনটি উপকরণে নিমিষেই দারুন সুস্বাদু ‘স্পঞ্জ মিষ্টি’ তৈরী করুন, রইলো পদ্ধতি

মিষ্টি খেতে ভালোবাসেন না এমন মানুষ খুব কমই দেখা যায়। দোকান থেকে হোক বা কোন অনুষ্ঠান বাড়ি মানুষের পাতে মিষ্টি থাকবেই। মিষ্টি প্রিয় দেখা মেলে সব জায়গাতেই। বিদেশের লোকেরা ও বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি পছন্দ করেন। তবে মিষ্টির দিক দিয়ে এগিয়ে রয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। আপামর বাঙালি দের বিভিন্ন ধরনের মিষ্টি খাওয়ার প্রবণতা হার মানায় সারা বিশ্ববাসীকে। পশ্চিমবঙ্গ সম্প্রতি প্রথয় রসগোল্লা তৈরির তকমা লাভ করেছে।

কিন্তু ওড়িশা দাবি করে আসছে তারাই প্রথম রসগোল্লার প্রচলন চালু করে। এছাড়াও বাংলার সন্দেশ, মনোহরা, দ‌ই, ক্ষীরকদম, বোঁদে, পানতুয়া ইত্যাদি খুবই বিখ্যাত। কিন্তু বর্তমানে করোনার এই ভয়া-বহ আ-ব-হে দোকান গুলি কে এড়িয়ে চলতে চাইছেন অনেকেই। কিন্তু সমস্যায় পড়েছেন মিষ্টি প্রিয় মানুষ জন।

কারণ তাঁরা দোকানে গিয়ে তাঁদের পছন্দমত মিষ্টির স্বাদ নিতে পারছেন না। কিন্তু এই সমস্যার সমাধান রয়েছে। সুস্বাদু রসগোল্লা তৈরি করা যাবে ঘরে বসেই। সাধারণ ঘরোয়া উপকরণ এর মাধ্যমে খুব সহজ ভাবেই এই রসগোল্লা তৈরি করা যাবে। তাহলে আসুন জেনে নিন কিভাবে তৈরি করবেন এই মিষ্টি-

উপকরণ – এই মিষ্টি তৈরি করতে উপকরণ লাগবে , ছানা -১ কাপ, জল – ৫ কাপ, চিনি – ৩ কাপ, দুধ- ১ টেবিল চামচ।

প্রণালী – কড়াইতে জল এবং চিনি জ্বাল দিয়ে পাতলা একটি মিশ্রণ তৈরী করে নিন। এবার ছানা থেকে মন্ড করে গোল গোল মিষ্টির আকার বানিয়ে নিন। তারপর কড়াইতে আঁচ বাড়িয়ে ওই মিষ্টি ঢেকে দিন। এইভাবে 15 মিনিট জ্বাল দিতে থাকুন। তারপর 15 মিনিট পরে ঢাকনা খুলে আবার দুই থেকে তিন মিনিট জ্বাল দিন। এরপরে আটকাবো ঠান্ডা জল ওই গরম মিশ্রণের মধ্যে ঢেলে দিন এবং মাঝে মধ্যে নাড়তে থাকুন।

মিষ্টি সিদ্ধ হয়ে যখন মিশ্রণে ডুবে থাকবে তখন কড়াইটি নামিয়ে আন্দাজমতো ঠান্ডা জল দিয়ে একবার নেড়ে নিন। সাত থেকে আট ঘণ্টা ওই অবস্থায় রেখে দিলেই ঘরোয়া রসগোল্লা তৈরি হয়ে যাবে। তাছাড়া গরম গরম‌ও পরিবেশন করতে পারেন। এর ফলে ঘরে বসেই দুর্দান্ত মিষ্টির মজা নিতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button