“কোন খানের বাচ্চা আছে দেখি, তোর কোনও বাপ কোনও আল্লা তোকে বাঁচাতে পারবে না”, ফের বি’স্ফোরক দিলীপ ঘোষ!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-সামনে একুশে পর যতই এগিয়ে যতই এগিয়ে আসছে ততই উত্তপ্ত হচ্ছে রাজনীতি মহলগুলো। রাস্তায় রাস্তায় পাড়ার মোড়ে মোড়ে দেখা যাচ্ছে বিক্ষো-ভ কর্মসূচি। কখনো শা-সক-দলের বি-রু-দ্ধে তো কখনো বিরোধী দলের বি-রু-দ্ধে । মোটকথা থেমে থাকেনি কেউ । তার সাথে সাথে মাথায় রাখেনি কেউ করোনা মতন পরিস্থিতিকে । যা কিনা যেকোনো মিছিলের জমায়েতে গেলে স্পষ্ট বুঝতে পারা যাবে ।

কিন্তু এরইমধ্যে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা মন্ত্রীরা উত্তেজনাবশত এমন কিছু মন্তব্য করে ফেলেন ফেলেন ভবিষ্যতে পড়তে হয় বিতর্ক এ । ঠিক সেরকমই আরো একবার উদ্বেগজনক বক্তব্যর মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ ।

দিলীপ ঘোষ এর আগেও বহুবার নিজের মন্তব্যের জন্য জড়িয়েছেন বিতর্কে। এই ঘটনা তার তার কাছে নতুন নয়। কিন্তু এবারের মন্তব্য শুধুমাত্র মন্তব্য ছিল না । তার সাথে ছিল হুমকির সুর ও । ডায়মন্ড হারবারে মহকুমা শাসকের কাছে আম্ফান এবং অন্যান্য সকল দুর্নীতি নিয়ে নিয়ে ডেপুটেশন জমা দিতে এসেছিলেন দিলীপ ঘোষ। সেই সভা থেকে থেকে তিনি করেছেন এমন মন্তব্য যাকে ঘিরে ফের শুরু হয়েছে ফের বিতর্ক ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য ওই দিন ডায়মন্ডহারবারের দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দেবার সময় আ-ক্রা-ন্ত হন বিজেপি নেতা শমীক ভট্টাচার্য । ডায়মন্ড হারবারে ডেপুটেশন জমা দেওয়ার পর থেকে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ একরাশ ক্ষোভ উগরে দিলেন শাসকদলের বি-রু-দ্ধে । তার সাথে সাথে তুলে ধরলেন সৌমিক ভট্টাচার্যের আ-ক্রা-ন্তে-র ঘটনা টিও ।

তিনি শুধু শমিক ভট্টাচার্যের উপরেই আ-ক্র-মণ হওয়া নিয়ে সরব হন নি, তিনি অর্জুন সিংয়ের উপর আ-ক্র-মণ নিয়ে সরব হন। এবং দুদিন আগে দুষ্কৃতীর গুলিতে মৃ-ত্যু হওয়া বিজেপি নেতা মণীশ শুক্লর প্রসঙ্গও তুলে ধরেন। এদিন তিনি রাজ্যে একের পর এক বিজেপি নেতার হ -ত্যা-র তদ-ন্ত-র জন্য কেন্দ্রীয় এজেন্সির দাবি করেন । এর পাশাপাশি তিনি শাসক দলকে কটাক্ষ করে বলেছেন” আমার কর্মীর গায়ে হাত দিলে তোদের কুকুরের মতো বের করব” ।

শুধু মাত্র এখানেই থেমে থাকেননি তি। নি তিনি আরও একধাপ এগিয়ে গিয়ে বলেছেন” আমি তিন বছর মেদিনীপুরে বিধায়ক ছিলাম একটাও গু-ণ্ডা আওয়াজ তুলতে পারেনি। সবাইকে মাটিতে পুঁতে দিয়েছি। আমি গু-ণ্ডা-দের সাবধান করে দিচ্ছি, বেশি কিছু করলে রাস্তায় কুটব”। ভোটের আগে বারবার বিজেপির পক্ষ থেকে এই ধরনের হুমকির সুরের মন্তব্য বিজেপি কে রীতিমতো অস্বস্তিতে ফেলতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button