‘রাজ্যপাল পঙ্গপাল’, ধনকড়কে ব্যঙ্গ করে পোস্টারে ছেয়ে ফেললো তৃণমূল, শাসকদলের প্রতি ফের ক্ষুদ্ধ রাজ্যপাল!

নিজস্ব প্রতিবেদন :-“রাজ্যপাল পঙ্গপাল” ঠিক এমনটাই দেখা গেল গোটা পোস্টার জুড়ে। আমরা এর আগেও দেখেছি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে রাজ্যপালের কটাক্ষ যুদ্ধ বা টুইট যুদ্ধ বা পত্র যুদ্ধ। এ যুদ্ধ থামার নয় এর আগেও বারবার প্রমাণ পেয়েছি । যতদিন গেছে ততই যেন বেড়ে চলেছে মুখ্যমন্ত্রী এবং রাজ্যপালের কটাক্ষ যু-দ্ধ । তবে এই যেন এক আলাদা ঘটনার সাক্ষী রইল রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার।

চীনের গালওয়ান উপত্যকায় শহীদ ভারতীয় সেনার বিপুল রায় এর বাড়িতে সস্ত্রীক দেখা করতে যান রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার । কিন্তু সেখানে গিয়ে দেখেন এক অবাক কান্ড । দেওয়াল জুড়ে রয়েছে পোস্টার এবং পোস্টার লেখা রয়েছে “পঙ্গপাল রাজ্যপাল বিজেপির দালাল এতদিন কোথায় ছিলে জবাব দাও জবাব দাও।” সেই পোস্টটাকে রীতিমতো বিতর্ক ছড়িয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আলিপুরদুয়ারের ।

যদিও রাজ্যপাল এ ব্যাপারে এ কোনো প্রতিক্রিয়া দেয়নি তখন । তার পরেই আরো একটি পোস্টের দেখা যায় যেখানে মুখ্যমন্ত্রী ছবির সঙ্গে লেখা রয়েছে “বিপুল রায় অমর রহে” এসব কিছু তোয়াক্কা না করে তিনি সড়ক পথ দিয়ে চলে যান লাদাখে বিমল রায় পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে।

ঐদিন রাজ্যপাল বিপুল রায় এর স্ত্রীকে নিজের হাতে ব্যক্তিগতভাবে ৫ লক্ষ টাকার একটি চেক তুলে দেন । এবং তার পাশাপাশি রাজ্যপালের স্ত্রী ও। বিপুল রায় এর স্ত্রীর হাতে একটি সাড়ে ৫ লক্ষ টাকার চেক তুলে দেন । এরপর তিনি চলে যান শিলিগুড়ি সেখানে সেরে ফেলেন সাংবাদিক বৈঠক । আর সেই সাংবাদিক বৈঠক থেকে তোপ ডাগলেন রাজ্যের উপর ।

তিনি বলেন, “রাজ্যে আইনশৃঙ্খলা বলে কিছু নেই। ধ-র্ষ-ণ ও নারী নির্যা-ত-নে-র ঘটনা বাড়ছে। ছক কষে বি-রো-ধী-দের খুন করা হচ্ছে। মুখ্যসচিব এবং স্বরাষ্ট্রসচিবের থেকে জবাব চেয়েও পাইনি। গ-ণ-তা-ন্ত্রিক পরিকাঠামোয় এভাবে রাজ্য সরকার চলতে পারে না।” এর পাশাপাশি তিনি এও জানান তিনি আরও বলেন, “এখানে রাজনীতি করতে আসিনি। দেশের জন্য শহীদ হওয়া বীর জওয়ানের পরিবারের পাশে দাঁড়াতে এসেছি।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য গত মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিপুল রায় এর স্ত্রী রুম্পা রায়। এর হাতে তুলে দেন আলিপুরদুয়ারের লোয়ার ডিভিশন ক্লার্ক এর নিয়োগপত্র । একে স্বামী হারানোর য-ন্ত্র-ণা তো রয়েছেই । কিন্তু তার সাথে সাথে ও সমাজে ফের মাথাচাড়া দিয়ে ওঠার এক অভিনব সুযোগ পেয়েছেন টুম্পা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button