ভক্তি ভরে করুন মা মনসার পুজো, পাবেন যে কোনো কঠিন সমস্যা থেকে মুক্তি, সংসারে আসবে মা লক্ষী!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-আমাদের পুরাণের কথা অনুযায়ী বিভিন্ন দেবদেবীর কথা আমরা জেনে থাকি। সেই দেবদেবীর উৎপত্তি কিভাবে কিভাবে বা তার পূজার্চনা করতে হয় ইত্যাদি সম্পর্কে তথ্য আমরা পুরান থেকে পেয়ে থাকি । সেই মত অনুসারে মা মনসার কথা আমরা প্রত্যেকে জানি।

পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় শ্রাবণ মাসে পূজিত হয় মা মনসা। একটা বিরাট সংখ্যক মানুষ সম্প্রদায় এই মা মনসার পূজো করে থাকেন। গোটা শ্রাবণ মাস ধরে কোথাও কোথাও চলে পালাগান । তবে এমন বেশ কিছু অলৌকিক ফল রয়েছে যা শুধুমাত্র মা মনসা পুজো করলে পাওয়া যেতে পারে ।

পুরাণে বর্ণিত, কাশ্যপ ঋষির স্ত্রী কর্দু একটি নারীমূর্তি বানিয়েছিলেন | কোনওভাবে সেই মূর্তি মহাদেবের বীর্যের সংস্পর্শে এসেছিল | তার ফলে প্রাণসঞ্চার হয় ওই মূর্তিতে | সৃষ্টি হয় মনসার | কিন্তু তাঁকে কোনওদিন কন্যারূপে মানতে পারেননি শিবজায়া পার্বতী। ব্রহ্মবৈবর্ত পুরাণ মতে, কশ্যপ মুনি ব্রহ্মার উপদেশে সর্পমন্ত্র সমূহের সৃষ্টি করে তপোবলে মন দ্বারা তাঁকে মন্ত্রের অধিষ্ঠাত্রী দেবীরূপে সৃষ্টি করেন— তাই তিনি মনসা।মনসা হলেন জরুৎকারু মুনির পত্নী, আস্তিক মুনির মাতা এবং বাসুকির ভগ্নী।

এর পাশাপাশি মনসামঙ্গল কাব্যের চাঁদ সদাগর এর কথা উল্লেখ আছে । সে কাব্য আমরা রীতিমতো সকলেই জানি । শ্রাবণ মাসে যে মনসার পূজো হয় তা কোন মূর্তি দেবী নয় বরং এক বা অধিক মাথাযুক্ত সাপের পুজো আমরা করে থাকি। এখানে সাপ মনসার বাহন নয় বরং নিজেই একটি দেবতা । শ্রাবণ মাসের নাগ পঞ্চমী তিথি, শ্রাবণ সংক্রান্তি ও অন্যান্য দিনে হয় মনসার পুজো।

তবে পুরাণের কথা অনুসারে এমন বেশ কিছু অলৌকিক ফল রয়েছে যা শুধুমাত্র মনসা পুজো করলে পাওয়া যায় এবং সেগুলি হল
১)মনসা পুজো করলে বাস্তুদোষ দূর হয়।

২). পারিবারিক অশান্তির বিনাশ হয়।

৩.) বন্ধ্যা নারীও সন্তানবতী হতে পারে।

৪.) বাড়ির সবাই সুস্থ থাকে।

৫.) সারা বছর আর সর্পভীতি থাকে না ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button