এই ৮ টি রো’গ থেকে চিরদিনের জন্যে মুক্তি পেতে প্রতিদিন নিয়ম করে খান কাঁচালঙ্কা! রইল বিস্তারিত।

নিজস্ব প্রতিবেদন :- বর্তমানে আধুনিকতা চক্করে পড়ে অনেক ধরনের নিত্য নতুন জিনিসপত্র বাজারে ইতিমধ্যে চলে এসেছে ।বিশেষ করে প্যাকেটজাত খাবারের পরিমাণ বেড়েই চলেছে প্রতিনিয়ত । কারণ এ ধরনের খাবার গুলি চাহিদা ভারতীয় বাজারে ব্যাপক মাত্রায় । লঙ্কার গুঁড়ো থেকে শুরু করে জিরে গুরু আদা গুরু সমস্ত কিছু প্যাকেটজাত এখন ।

কিন্তু কাঁচা জিনিস খাওয়ার স্বাদ এবং উপকারিতা প্যাকেটজাত জিনিসে থেকে অনেকগুণ বেশি এটা অস্বীকার করার কোনো উপায় নেই । তাই আজকের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে আপনাদেরকে জানাবো যে কাঁচা লঙ্কার উপকারিতা থাকতে পারে। আমরা এর আগে প্রতিবেদনের মাধ্যমে জেনেছিলাম যে কাঁচালঙ্কা কে কিভাবে দীর্ঘদিন ধরে একই অবস্থায় মজুদ করে রাখা যেতে পারে । এবার জানবো এই কাঁচা লঙ্কার উপকারিতা কি ।

নিয়মিত কাঁচালঙ্কা খাওয়া স্বাস্থ্যের পক্ষে বিশেষ উপকারী। কারণ এর মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ডায়েটারি ফাইবার থাকার পাশাপাশি রয়েছে ভিটামিন এ, বি, সি, কে, থায়ামিন, রাইবোফ্লাভিন, নিয়াসিন প্রভৃতি পুষ্টিযৌগ। কাঁচালঙ্কা মিনারেলস অর্থাৎ খনিজ লবনেও বেশ ভরপুর। এর মধ্যে থাকে পটাশিয়াম, ফসফরাস, ফলেট, আইরন, ম্যাঙ্গানিজ প্রভৃতি। আসুন দেখে নেওয়া যাক কাঁচা লঙ্কার ঠিক কি কি উপকারিতা রয়েছে ।

১) যদি কোনো কারণে আপনি সর্দি-কাশিতে ভুগতে থাকেন প্রতিনিয়ত তাহলে অতি অবশ্যই কাঁচা লঙ্কা খাওয়ার পরিমাণ বাড়িয়ে দিন । সেক্ষেত্রে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করবে কাঁচালঙ্কার মধ্যে থাকা ভিটামিন সি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট

২) কাঁচা লঙ্কার মধ্যে যেহেতু ভিটামিন এ এবং সি ও ক্যালসিয়াম বর্তমান থাকে তাই হাড় গঠনে এবং দাঁত মজবুত করতে সাহায্য করে।

৩) হজমজনিত কোন কারনে কোন ধরনের সমস্যা হলে আপনি কাঁচা লঙ্কা খেতে পারেন । জানি এর স্বাদ ঝাল কিন্তু তবুও কষ্ট করে আপনাকে এর পরিমাণ বাড়াতে হবে।

৪) যদি কখনো দু-র্ঘটনায় আপনার শরীরের কোন অংশে রক্ত জমে যায় তবে সেক্ষেত্রে কাঁচালঙ্কা খান। এর মধ্যে থাকা ভিটামিন-কে রক্ত তঞ্চনে সাহায্য করে ও মস্তিষ্কে র-ক্ত জ-মাট বাঁধতে দেয় না।

৫) স্নায়ুকে আরও মজবুত করতে এবং সতেজ করছে প্রতিনিয়ত কাঁচালঙ্কা খান ।

৬) ত্বকের বলিরেখা দূর করতে অতি অবশ্যই প্রতিদিন একটি করে কাঁচা লঙ্কা খান ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button