মাত্র এক টুকরো বরফ দিয়ে এই কাজ করলে আপনার সৌন্দর্য বৃদ্ধি হবে কয়েক গুণ, ফল পাবেন কয়েক দিনের মধ্যে!

সম্প্রতি বিজ্ঞানের দান এর ফলে আমরা বিংশ শতাব্দীর প্রাক্কালে এসে উপনীত হয়েছি। সময়ের সাথে সাথে নিজেকে পাল্লা দিতে দিতে কিংবা এগিয়ে নিয়ে যেতে সব মানুষই চায় । আর তার সাথে রয়েছে নিজেকে সুন্দর আকর্ষণীয় করে তোলার জন্য রূপচর্চা। যার জন্য রয়েছে পার্লার কিংবা বিভিন্ন ধরনের প্রোডাক্ট ।বহু মানুষ বিভিন্ন কোম্পানির প্রোডাক্ট ব্যবহার করে থাকেন যা অত্যন্ত দামী এবং ব্যয়বহুল। তবে জেনে নেওয়া যাক এমন একটি অতি সাবলীল কম দামি বস্তু যা কিনা সহজে সকল গৃহস্থের বাড়িতে লভ্য।

বরফ এই নামটির সাথে সকলেই পরিচিত। বিভিন্ন কাজে এর ব্যবহার রয়েছে। বিভিন্ন বস্তুর সংরক্ষণ থেকে শুরু করে আইসক্রিম বানানোর ক্ষেত্রে এর জুড়ি মেলা ভার। বরফের সাহায্যে সৌন্দর্য বৃদ্ধি করা যায়। কে কাজে লাগিয়ে অপরূপ সুন্দরী হয়ে উঠবেন আপনি তবে তার জন্য জানা যায় সঠিক পদ্ধতি। জেনেও যাক সেই সমস্ত পদ্ধতি।

1. দীর্ঘ সময় ধরে মেকআপ ধরে রাখতে এক টুকরো বরফ নিয়ে ভালো করে মুখে ঘষে নাও। তারপর যখন একেবারেই জলটা শুকিয়ে যাবে তখনই শুরু করুন মেকআপ। আর এমনটি করলেই ফাউন্ডেশন খুব ভালোভাবে তকে শোষিত হবে ফলে সহজে মেকআপ নষ্ট হতে চায় না।

2. ত্বককে টানটান করতে এক টুকরো কাপড়ের মধ্যে কিছু পরিমাণ বরফ নিয়ে নিন। আর তারপর সেটাকে ভালো করে মুখে ঘষুন কিছুক্ষণ। প্রচন্ড ঠান্ডা হওয়ার কারণে বরফ ঘষে মাত্রই মুখে রক্ত চলাচল বেড়ে যায় এবং ত্বক টানটান হয়ে ওঠে।

3. চোখের ফোলা ভাব কমাতেও এর জুড়ি মেলা ভার।সমপরিমাণ কিংবা যতটা দরকার বরফের টুকরো কাপড়ের মধ্যে নিয়ে ভালোভাবে চোখের তলায় ঘষতে থাকুন। এমনটি করলে চোখের ফোলা ভাব কমে যাবে তার সাথে দূর হবে ডার্ক সার্কেল এর সমস্যা। বরফ ঘষার সঙ্গে সঙ্গে চোখের তলায় রক্ত চলাচল বেড়ে যায় যে কারণে এই ধরনের সংস্থা গুলি চটজলদি দূর হয়ে যায়।পক্ষে রিজভী নেট করার মাধ্যম দিয়ে আরও নানা রকমের ত্বকের রোগ সারাতে বরফের কোন বিকল্প নেই বললেই চলে।

4. ব্রণের সমস্যা কমাতে এর গুরুত্ব অপরিসীম।টুকরো বরফ নিয়ে যে স্থানে ব্রন বেরিয়েছে তার উপরে আলতো করে ঘষতে থাকুন দেখবেন নিমেষেই দূর হয়ে যাবে ব্রন টি।আসলে বরং ভাষার সাথে সাথে মুখের রক্ত প্রবাহ বেড়ে যায় যে কারণে তা শুকিয়ে যেতে পারে। এছাড়াও বরফের ঘষার মাধ্যমে কচিদের জন্মহার বেড়ে যায় ফলে ধীরে ধীরে উজ্জ্বল এবং প্রাণবন্ত হয়ে ওঠে।

5.বরফের ওপর একটি দিক হলো কোনো কারণে ত্বকে প্রদাহ কিংবা জ্বালা সৃষ্টি হলে সেই স্থানে যদি বরফকে লাগানো যায় তাহলে প্রদাহ কমতে শুরু করবে এবং লাল ভাব টি আস্তে আস্তে করে কমে যাবে।

6.পুড়ে যাওয়া ত্বকের স্বাভাবিক করে বড় ।প্রচন্ড ঠান্ডা হওয়ার কারণে সেটি তোকে ঘষলে জায়গার তাপমাত্রা নিমেষেই কমে যায় ফলে সূর্যালোকের কারণে পুড়ে যাওয়া ত্বক স্বাভাবিক হতে শুরু করে ।সেইসঙ্গে ত্বকের প্রদাহ হাস পায়।

7. মেয়েদের আইব্রও করার পর বেশিরভাগ সময় জ্বালা কিংবা যন্ত্রণা হয় সে ক্ষেত্রে একটুকরো বরফের টুকরো নিয়ে যেখানে জ্বালা হচ্ছে সেখানে কিছুক্ষণ ঘষলেই কষ্ট একবারে কমে যায়।

8. ত্বককে উজ্জ্বল এবং সুন্দর করে তুলতে বরফের গুরুত্ব অপরিসীম। আইসট রীতিতে অল্প করে কমলালেবুর রস ঢেলে ট্রে টিকে ডিপ ফ্রিজে ঢুকিয়ে রাখুন।বরফ হয়ে যাওয়ার পর তার মধ্য থেকে একটি টুকরো বার করে নিযে ভালো করে মুখে ঘষতে থাকুন এমনটি করলে ত্বক টানটান হবে এবং উজ্জ্বলতা বাড়বে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button