‘বিজেপি প্রগতিশীল, সংখ্যালঘু বিরো’ধী নয়’, বিজেপিতে যোগ দিয়েই বললেন তিন তালাককে প্রথম চ্যালেঞ্জ করা শায়রা বানু!

নিজস্ব প্রতিবেদন:-রাজনীতিতে কোন কিছুই বাদ যায় না অর্থাৎ কোনো জিনিসকে প্রতিষ্ঠা করতে গেলে সমাজের যেকোনো জিনিস কে ব্যবহার করা যেতে পারে । আমি এই কারনে এই কথাগুলি বলছি কারন মুসলিম সম্প্রদায়ের একটি বিশেষ প্রথা আছে যার নাম তিন তালাক ।

এই তিন তালাক এর ফলে তাদের বিচ্ছেদ সম্পন্ন হয় এমনটা বলছে তাদের ধর্ম । এবার রাজনীতিতে সেই তিন তালাক প্রথা তুলে না হলো । কিন্তু এই তিন তালাকের বিরুদ্ধে গিয়েছিলেন প্রথম এক মহিলা তার নাম নিশ্চয়ই আপনাদের জানা আছে । তার নাম শায়রা বানু । এবার সেই মহিলা যোগ দিলেন বিজেপিতে এবং তুলে ধরলেন বিস্ফোরক মন্তব্য ।

সম্প্রতি বিজেপিতে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদান করেন ভারতের প্রথম তিন তালাক কে চ্যালেঞ্জ করা মহিলা শায়ার বানু । মূলত মুসলিম মহিলাদের প্রতি বিজেপির কর্মীদের প্রগতি মূলক দৃষ্টি যা তাকে অনুপ্রাণিত করেছে এই বিজেপিতে যোগদান করার জন্য । এমনটাই বক্তব্য ওই মহিলার । যদিও তাকে সাদরে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন উত্তরাখন্ড রাজ্য সভাপতি বংশীধর ভগৎ ।

শায়রা জানিয়েছেন, বিজেপি সংখ্য়ালঘু-বিরোধী, এই ভুল ধারণা তিনি ভেঙে দেওয়ার চেষ্টা করবেন। এপ্রসঙ্গেই তিনি বলেন, মূলত মুসলিম মহিলাদের প্রতি বিজেপির প্রগতিশীল মনোভাব, তিন তালাককে বেআইনি ঘোষণা করায় তারা যে দায়বদ্ধতা দেখিয়েছে এবং নরেন্দ্র মোদির সবাইকে উন্নয়নে সামিল করার দৃষ্টিভঙ্গি-এসব দেখেই আমি বিজেপিতে এসেছি।

আমি সংখ্যালঘুদের প্রতি দলের ন্যায়ের মনোভাবে আস্থাশীল। বিজেপি সংখ্য়ালঘুদের বিরোধী বলে ভ্রান্ত ধারণার চল আছে, সেটা ভেঙে দেওয়া উচিত। মুসলিম মহিলাদের অধিকার রক্ষায়, তাদের উচ্চশিক্ষা লাভের সুযোগ থেকে বঞ্চিত করার মতো অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়তে চান বলেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, ।

সূত্রে জানা যায়। স্পীড পোষ্টের মাধ্যমে তার স্বামী তিন তালাক দিয়ে তার থেকে বিচ্ছেদ চেয়ে ছিলেন । এবং এই মহিলা পরবর্তী কালে ২০১৬ সালে সাংবিধানিক নিয়ম কে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টে ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button