ধূমকেতুর মতো উত্থানের পর হটাৎ হারিয়ে গেলেন সাথী ছবির নায়িকা! কেমন আছেন এই নায়িকা এখন?

বাঙালিরা সাধারণত ঘুরতে এবং সিনেমা দেখতে ভালোবাসেন। সিনেমা দেখার উপর ভিত্তি করে গতাব ইন্ডাস্ট্রি গড়ে উঠেছে।ইন্ডাস্ট্রিতে উপর ভিত্তি করে বহু মানুষের কর্মসংস্থানের বহু মানুষ তার দৈনন্দিন রুটিরুজির কে মাথায় করে সাথে যুক্ত।সিনেমার ধর্ম অনুসারে তাকে তিন ভাগে ভাগ করা যায় টলিউড ,বলিউড এবং হলিউড। হলিউড অর্থাৎ বাংলা সিনেমা।বলিউড অর্থাৎ হিন্দিভাষীর সিনেমা এবং সর্বোপরি হলিউড অর্থাৎ ইংরেজি ভাষার সিনেমা।

তিন ধরনের সিনেমারই চাহিদা রয়েছে ভারতীয় বাজারে। কিছু বছর আগে পর্যন্ত বেশিরভাগ মানুষেরা টলিউড এবং বলিউডের উপরেই ভরসা করতেন।বর্তমান যুগের সাথে সাথে তাল মিলিয়ে চলতে চলতে অনেকেই টলিউড বলিউড কে বাদ দিয়ে রীতিমত নিজেকে সঁপে দিয়েছেন হলিউডের খাতায় এর কারণ হিসেবে বলা যেতে পারে প্রচুর পরিমাণে অনলাইন বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম এবং নেটদুনিয়া অতি সহজেই নিজের হাতের মুঠোয় চলে আসা। ফলস্বরূপ টলিউড ইন্ডাস্ট্রি ধ্বংসের দিকে।

বলিউডে কিছু বছর আগে ঝলকা টাটকা বাতাস এনেছিলেন “হঠাৎ বৃষ্টি “ছবি হাত ধরে একজন নায়িকা। 2002 শালী বাসু ভট্টাচার্যের পরিচালনায় এই ছবির নায়িকা ছিলেন প্রিয়াঙ্কা ত্রিবেদী।বক্স অফিসে তেমন সুপারহিট না হলেও ছবির অনুসরণ করে পরবর্তীকালে বলিউডে তৈরি হয়েছিল “সিরফ তুম”।ভারত-বাংলাদেশ প্রতিবেশী দেশের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ফিরদৌস প্রিয়াঙ্কা জুটির “হঠাৎ বৃষ্টি ও তামিল ছবি কডহাল কোট্টাই”অনুসরণে তৈরি এই চলচ্চিত্রটি।

এই চলচ্চিত্রটির ছিল প্রিয়াঙ্কা ত্রিবেদী প্রথম ছবি। তার ছয় বছর আগে তিনি মিস ক্যালকাটা শিরোপা অর্জন করেছিলেন। প্রিয়াঙ্কার জন্ম এই মহানগরী কলকাতাতেই। হাজার 977 সালের 12 ই নভেম্বর তিনি পদার্পণ করেন। তার দ্বিতীয় ছবি ছিল অঞ্জন দত্তের পরিচালনায় “বড়া দিন”। এর পরবর্তীকালে তিনি অভিনয় করেন”সৌতেলা” তে। বাংলা এবং দুটি হিন্দি ছবির পরেই প্রিয়াঙ্কা পাড়ি দেন দক্ষিণী ছবিতে। 2002 সালে মুক্তি পায় তার প্রথম তেলেগু ছবি “রা”।

দক্ষিণী ইন্ডাস্ট্রির সাথে নিজেকে মানিয়ে নেয় এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী এবং দক্ষিনে ছবির অন্যতম মুখ হয়ে ওঠেন তিনি। পাশাপাশি হিন্দি এবং বাংলা ছবিতেও অভিনয় করতে দেখা যায়। 2002 সালে মুক্তি পায় বিখ্যাত প্রযোজক সোমনাথ চক্রবর্তী পরিচালিত” সাথী”। সেই সময় জিৎ প্রিয়াঙ্কা জুটি এই ছবি ছিল টলিউডের ব্লকবাস্টার । হিট হয়েছিল এই ছবির সাথে জড়িত গানগুলো।রেডিও থেকে টিভি এবং বাচ্চাদের মুখোমুখি পুজো প্যান্ডেলে সেই অতি পরিচিত” ও বন্ধু তুমি শুনতে কি চাও”সবকিছুর কাছে হার মেনে ছিল সেই সমসাময়িক বাকি সব সুর। সমকালীন বাংলা গানের প্লেব্যাকে নতুন ছোঁয়া এনেছিল অতি জনপ্রিয় গানটি।

সমকালীন সময়ে ব্লকবাস্টার ছবিটি পাওয়ার পরেও টলিউডে অন্যান্য নায়িকাদের স্রোতে তিনি নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি তার মূলত পছন্দের শীর্ষে ছিল দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি।দক্ষিণী ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির সাথে সাথে আবারো 2002 সালে বাসু ভট্টাচার্য পরিচালনায় অভিনয় করেন ফিরদৌসের সাথে “টক ঝাল মিষ্টি”।2003 সালে হরনাথ চক্রবর্তীর ফের পরিচালনায় সঙ্গী ছবিতে দর্শকরা পেয়েছিলেন তাকে আবার অভিনেতা জিৎ এর সাথে। তবে তাদের প্রথম ছবির ম্যাজিক বক্স অফিসে দ্বিতীয় ছবির মত আর ফিরে আসেনি।

টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় এর বিপরীতে এই অভিনেত্রী প্রথম অভিনয় করেন “অগ্নিপরীক্ষা “ছবিতে। রবি কিনাগী পরিচালিত এই ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল 2006 সালে।প্রসেনজিৎ -প্রিয়াংকা জুটিকে আবার দেখা যায় “গোলমাল “ছবিতে। স্বপন সাহা পরিচালিত এই ছবিটি মুক্তি পায় 2008 সালে। এই ছবির বাকি অন্য শিল্পীদের মধ্যে জনপ্রিয় ছিলেন টোটা রায়চৌধুরী ও যিশু সেনগুপ্ত। প্রিয়াঙ্কা অভিনীত দুটি ছবি হলো” অমর প্রতিজ্ঞা “এবং “অপরাধী”।

এই সব ছবির পরেই কার্যত হারিচান্ড টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে কে এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। ফের তিনি ফিরে আসেন 2011 সালে।নন্দিতা রায় এবং শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় পরিচালনায় অভিনয় করেন “হ্যালো মেমসাহেব” সিনেমা তে। সময় সেই ছবিতে তার নায়ক ছিলেন সেই জনপ্রিয় অভিনেতা জিৎ।তার পরবর্তী কালে দর্শকদের অনেকেরই মনে হয়েছে তিনি হয়তো সিনেমা জগৎ ছেড়ে দিয়েছেন কিন্তু আদতে তা নয় বরং তিনি দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন তামিল এবং কন্নড় ছবিতে।

এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কার ফিল্মোগ্রাফি তামিল এবং কণ্য ছবির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো এইচ টু ও’, ‘আইস’, ‘রাজা’, ‘শ্রীমতী’ এবং ‘দেবকী’। সূত্র মারফত জানা যায় তিনি প্রিয়াঙ্কা ত্রিবেদী এখন আর নন, 2003 সালে অভিনেতা পরিচালক প্রযোজক উপেন্দ্র রাওকে বিয়ের পর থেকে তিনি প্রিয়াঙ্কা উপেন্দ্র নামে পরিচিত।বিনয় জগতের বাইরে উপেন্দ্রর অন্য পরিচয় রয়েছে। তিনি একজন রাজনীতিক। 2017 তিনি যোগ দেন ‘কর্ণাটক প্রাজ্ঞবন্ত জনতা পক্ষ ‘দলে। পরের বছরই মনোমালিন্যের জেরে দল ছেড়ে দেন। এবং তৈরি করেন নতুন দল “উত্তম প্রজাকীয় পার্টি”।

উপেন্দ্র প্রিয়াঙ্কার দুই সন্তান। ছেলে আয়ুস এবং মেয়ে ঐশ্বর্যা। ঘরকন্নার কাজ সামলানোর পাশাপাশি তিনি অংশগ্রহণ করেন বিভিন্ন ফ্যাশন শো তে।জানা যায় জিতের ক্যারিয়ারে পঞ্চাশতম ছবিতে অভিনয় উপলক্ষে দু’ বছর আগে তাঁকে অভিনন্দন জানান প্রথম ব্লকবাস্টার ছবির অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা ত্রিবেদী।সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের জিতের সাথে সাম্প্রতিক ছবিও পোস্ট করেন অভিনেত্রী।ছবি ঘিরে অনুরাগীদের মধ্যে উৎস এবং আনন্দের ছোঁয়া দিয়েছিল প্রথম এই জুটির সেই ব্লকবাস্টার ছবি “সাথী”।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরও পড়ুন

Back to top button